হাফিজ মজুমদার ট্রাস্টের বৃত্তি বিতরণী ও বিতর্ক প্রতিযোগিতা

হাফিজ মজুমদার শিক্ষা ট্রাস্টের ৩৯তম বৃত্তি বিতরণী ও আন্তঃস্কুল বিতর্ক প্রতিযোগিতা শনিবার সাজ্জাদ মজুমদার বিদ্যানিকেতন মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

হাফিজ মজুমদার শিক্ষা ট্রাস্টের চেয়ারম্যান মেজর অব. নাজিম উদ্দিন মজুমদারের সভাপতিত্বে ট্রাস্টের সহকারী সচিব শুভ্রকান্তি চন্দনের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন হাফিজ মজুমদার শিক্ষা ট্রাস্টের চেয়ারম্যান ড. হাফিজ আহমদ মজুমদার।

বক্তব্য রাখেন সিলেট-৫ আসনের সংসদ সদস্য মাওলানা মোহাম্মদ হুছামুদ্দীন চৌধুরী। হাফিজ মজুমদার ট্রাস্ট কর্তৃক আন্তঃস্কুল বিতর্ক প্রতিযোগিতায় জকিগঞ্জ ও কানাইঘাট উপজেলার ২১টি বিদ্যালয় অংশগ্রহণ করে।

‘অধিক উৎপাদনই দ্রব্যমূল্যের উর্ধগতি নিয়ন্ত্রণ করতে পারে’ বিষয়ে চুড়ান্ত বিতর্ক প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয় কানাইঘাটের জুলাই আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়, রানার্সআপ হয় জকিগঞ্জের সাজ্জাদ মজুমদার বিদ্যানিকেতন। উভয় দলের বিতার্কিকদের একটি করে ল্যাপটপ ও ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।

প্রধান শিক্ষক সাব্বির আহমদের সভাপতিত্বে ও সহকারী অধ্যাপক খালেদ মহিউদ্দিন আজাদের সঞ্চালনায় বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন প্রফেসর ড. মো. ফরহাদ রাব্বী, প্রফেসর রুমেল এমএস রহমান পীর, সিলেটের যুগ্ম ও জেলা দায়রা জজ আসাদ মামুনুল ইসলাম, পুলিশ সুপার (ডিবি) শাহরিয়ার আলম পলাশ, সহযোগি অধ্যাপক মুসাদ্দেক হোসেন খাঁন।

অনুষ্ঠানে হাফছা মজুমদার প্রতিভা নিবাসের শিক্ষার্থীরা পৃথক পৃথক শরীরচর্চা প্রদর্শন করে।

অনুষ্ঠান শেষে প্রাথমিক স্তরে ৩৩৭ ও মাধ্যমিক স্তরে ৩০৯জন শিক্ষার্থীকে বৃত্তি ও সনদপত্র প্রদান করা হয়। বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন ইমরানা ফেরদৌস বৃষ্টি ও সাঈদা ফয়সল চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে জকিগঞ্জ-কানাইঘাটের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ২০২৩ সালে অবসর গ্রহণকারী শিক্ষক-কর্মচারীদের সম্মাননা প্রদান করা হয়।