হাই ভোল্টেজ ম্যাচে রাতে রিয়ালের মুখোমুখি নেইমারবিহীন পিএসজি

ঘরের মাঠে বিগ ম্যাচ। পিছিয়ে থাকা পিএসজিকে জিততেই হবে। কিন্তু এমন মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে নেই নেইমার। অগ্নিপরীক্ষার সামনে নেইমারবিহীন পিএসজি।

চ্যাম্পিয়নস লিগের এবারের আসরে টিকে থাকার লড়াইইয়ে ফ্রেঞ্চ জায়ান্টদের প্রতিপক্ষ আজ স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদ। শেষ ষোলোতে ৩-১ গোলে পিছিয়ে থেকে রিয়াল মাদ্রিদকে পাল্টা চ্যালেঞ্জ জানাতে কঠিন পথই পাড়ি দিতে হবে পিএসজিকে।

প্যারিসের পার্ক ডেস প্রিন্সেস স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার (৬ মার্চ) বাংলাদেশ সময় দিবাগত রাত পৌনে ২টায় হাইভোল্টেজ ম্যাচটি শুরু হবে। বার্নাব্যুতে নকআউট পর্বের প্রথম লেগে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর জোড়া গোলে কোয়ার্টার ফাইনালে এক পা দিয়ে রেখেছেন টানা দু’বারের চ্যাম্পিয়ন রোনালদোরা।

নেইমারের অনুপস্থিতি জিনেদিন জিদানের রিয়াল শিবিরে এনে দিয়েছে স্বস্তি। পায়ের পাতার হাড়ে সার্জারির কারণে অন্তত দুই মাসের জন্য মাঠের বাইরে চলে গেছেন ব্রাজিলিয়ান সেনসেশন।

২-০ ব্যবধানে জিততে পারলেই অ্যাওয়ে গোলের সুবাদে রিয়াল বাধা জয় করে শেষ আটে উঠে যাবে পিএসজি। আবার স্বাগতিকদের জালে বল পাঠালেই আরও চালকের আসনে বসবে গ্যালাকটিকোরা। সব মিলিয়ে জমজমাট এক ম্যাচই উপভোগ করবেন দর্শকরা।

নেইমারের অভাব পূরণের কাজটা করতে হবে এমবাপ্পে-কাভানি-ডি মারিয়াদের। জিতেও বিদায় নিতে পারে পিএসজি। তাই জিততে হবে সমীকরণ পূরণ করেই। অন্যদিকে, হ্যাটট্রিক শিরোপা মিশনে পরের রাউন্ড ভিন্ন কিছুই চিন্তা করছে না লস ব্লাঙ্কসরা।

প্যারিসে শেষ হাসি কারা হাসবে সেটিই এখন দেখার বিষয়! গতবার শেষ ষোলোতেই প্রথম লেগে ৪-০ গোলে এগিয়ে থেকেও ন্যু ক্যাম্পে হতাশায় ডুবে ৬-১ গোলে বিধ্বস্ত হয়েছিল পিএসজি। এবারও নকআউট পর্ব থেকে বিদায়ের শঙ্কা। ২০০৯-১০ মৌসুমের পর রিয়ালকে প্রথমবার শেষ ষোলো থেকে ছিটকে দিতে পারলে এটি হবে নেইমারের জন্য সতীর্থদের বড় এক উপহার।