সেই সিদ্দিক মিয়ার নৌকা এখন সিলেটে

যেখানেই নৌকার ভোট, সেখানেই নৌকাভ্যান নিয়ে হাজির হন সিদ্দিক মিয়া। তারপর নৌকার পক্ষে চালান প্রচারণা। দেশের বিভিন্ন নির্বাচনের মতো সিলেটেও এসে হাজির হয়েছেন তার নৌকা সদৃশ ভ্যান নিয়ে।

নেত্রকোণার পূর্বধলা উপজেলার পাইলাটি গ্রামের আলাউদ্দিন মিয়ার ছেলে সিদ্দিক মিয়া এখন পুণ্যভূমি সিলেটে। দুই শিশুপুত্রকে সঙ্গী করে চারদিন ধরে পায়ে চালিয়ে তার বিশেষ নৌকাটি নিয়ে তিনি সিলেট এসে পৌঁছেন। সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের নৌকার প্রচারণার জন্যই তার সিলেট আসা। ষাটোর্ধ্ব সিদ্দিক মিয়ার এখন ব্যস্ত সময় কাটছে নৌকার প্রচারণায়। ছোট দুই ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে নৌকাভ্যান নিয়ে তিনি ছুটছেন সিলেট নগরের পথে পথে, আর মাইকে নৌকার সমর্থনে গান বাজছে। যেখানেই যাচ্ছেন সাধারণের সমর্থন আর ভালোবাসা পাচ্ছেন সিদ্দিক মিয়া। তার নৌকাভ্যানের পাশে ভিড় করছেন।

যেখানেই নৌকা প্রতীকে নির্বাচন হয় সেখানেই তার নৌকাভ্যান নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন সিদ্দিক মিয়া। গাজীপুর সিটি নির্বাচনেও আওয়ামী লীগ প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমের পক্ষে প্রচারণায় অংশ নেন সিদ্দিক। এর আগে নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভীর পক্ষে প্রচার চালাতেও হাজির হয়েছিলেন তিনি। ২০১৬ সালে আওয়ামী লীগের সম্মেলন চলার সময় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানেও উপস্থিত ছিলেন সিদ্দিক মিয়া।

বঙ্গবন্ধু ও আওয়ামী লীগের প্রতি সিদ্দিক মিয়ার এ ভালোবাসা অনেক দিনের। ১৯৭০ সালে নেত্রকোণা সরকারি কলেজের এক সমাবেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে দেখতে গিয়েছিলেন তিনি। লোকসমাগম বেশি হওয়ায় বঙ্গবন্ধু’র বক্তব্য শুনতে পাশের স্কুলের ছাদে দাঁড়িয়ে ছিলেন। তখন স্কুলের ছাদ ধসে গায়ের ওপর পড়ে। ’আহত অবস্থায় বঙ্গবন্ধুর কাছে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। বঙ্গবন্ধু তখন কিশোর সিদ্দিকের মাথায় হাত বুলিয়ে বলেন ‘এই ছেলে বড় হয়ে আওয়ামী লীগ করবে। সেই থেকেই সিদ্দিক মিয়া বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে নিয়ে পথ চলছেন।

সিদ্দিক মিয়া বলেন, নৌকা হচ্ছে স্বাধীনতার প্রতীক। এই প্রতীক আমার আত্মার সাথে মিশে আছে। তাই যেখানেই নৌকা মার্কায় নির্বাচন হয় সেখানেই আমি আমার নৌকা নিয়ে ছুটে যাওয়ার চেষ্টা করি। আমি সিলেটবাসীকে অনুরোধ করবো আপনারা কামরান ভাইকে উন্নয়নের প্রতীক নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে বিজয়ী করুন। ইনশাআল্লাহ শেখের বেটি আপনাদের এই সিলেটকে উন্নয়নে ভরিয়ে দেবেন।