সুনামগঞ্জে কারারক্ষীর ঝুলন্ত মরহেদ উদ্ধার

সুনামগঞ্জে জেল কোয়ার্টার থেকে আমজাদ হোসেন (২৪) নামের এক কারারক্ষীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (১১ মে) জেল কোয়ার্টারে নিজ কক্ষে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন আমজাদ হোসেন।

পুলিশ ও কারা সূত্রে জানা যায়, বিকেলে পাশের কোয়ার্টারের লোকজন আমজাদের ঘরের সিলিং-এ গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় ঝুলন্ত আমজাদের লাশ দেখতে পান। এ সময় ভেতর থেকে দরজা বন্ধ ছিলো বলে জানায় স্থানীয়রা। পরে কারাগারের লোকজন পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ এসে নিহতের মরহেদ উদ্ধার করে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

আমজাদ হোসেন প্রায় এক মাস আগে হিন্দু থেকে মুসলিম ধর্ম গ্রহণ করে সাজেদা ইয়াসমিন নামের সুনামগঞ্জ কারাগারে কর্মরত আরেক কারা রক্ষীকে বিয়ে করে। গত ১০ এপ্রিল তারা দুজনে বিয়ে করনে। পরে কোয়ার্টারে দুজন মিলে সংসারও করছিলেন। তবে তাদের মধ্যে কোন পারিবারিক কলহ ছিল কি না তা কেউ বলতে পারেন নি। সিলেট জেলার জৈন্তাপুর উপজেলার গিলাতলি গ্রামের বাসিন্দা দিপেন্দ দাসের ছেলে ধৈয দাস ধর্মান্তরিত হয়ে নাম পরিবর্তন করে আমজাদ হোসেন রাখেন। দাপ্তরিক ভাবে তিনি পুর্বের নামই নাম ব্যবহার করতেন। এফিডেফিডের মাধ্যমে তার নাম পরিবর্তন করলেও দাপ্তরিকভাবে পূর্বের নামই থেকে যায়, তা পরিবর্তন করা হয় নি বলে জানা যায়।

সুনামগঞ্জের জেল সুপার একে আজাদ জানান, কি কারণে সে আত্বহত্যা করল আমরা এখন বলতে পারছি না। তবে আমরা দেখেছি সে গত বিয়ের পর ভাল ভাবেই সংসার নিয়ে চলছিল। এ ব্যাপারে তার পরিবারের সাথে আমরা যোগাযোগ করছি।

সুনাগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহীদউল্লাহ বলেন, আমরা খবর পেয়ে এসে তারা তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছি। কি কারণে এই ধরনের ঘটনা ঘটল আমরা তদন্ত করে বলতে পারব। এখন সুরতহাল শেষে মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হচ্ছে। তার শরীরে কোন আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায় নি।