সিলেট ভয়েসের আত্মপ্রকাশে অতিথিকথন

সিলেট ভয়েসের প্রচ্ছদ পাতায় এখন আর লাল রঙের ‘পরীক্ষামূলক সম্প্রচার’ নেই। মঙ্গলবার (১৫ মে) বিকেলে সিলেটের নানা শ্রেণী-পেশার মানুষের উপস্থিতিতে ‘পরীক্ষামূলক সম্প্রচার’ বাক্যটি তুলে দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করেছে ভিন্ন ধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল সিলেট ভয়েস ডটকম।

সিলেটের একটি অভিজাত রেস্টুরেন্টের কনফারেন্স হলে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে অনলাইন নিউজ পোর্টালটি আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করে।

যাত্রা শুরুর প্রাক্কালে সিলেটের সুহৃদজন নিয়ে সুধি সমাবেশের আয়োজন করে সিলেট ভয়েস পরিবার। এ সময় সুধিজনেরা নানা পরামর্শ প্রদানের পাশাপাশি আগামীর অগ্রযাত্রায় সিলেট ভয়েসকে অনুপ্রেরণা ও সাহস যোগান।

সিলেট ভয়েস পরিবারের সদস্য ফাহমিদা ঊর্মীর সঞ্চালনায় এবং পোর্টালটির সম্পাদক সৈয়দ রাসেলের স্বাগত বক্তব্যের মাধ্যমে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে নানা দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার মুহম্মদ আব্দুল ওয়াহাব। তিনি বলেন, অপ্রকাশিত সত্যকে প্রকাশিত করাই হচ্ছে সাংবাদিকদের কাজ। এ বিষয়টি মাথায় রেখেই সিলেট ভয়েস কাজ করে যাবে। আর এ কাজে কোনো বাধা আসলে সবসময় সাংবাদিকদের পাশে থাকবে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ।

এছাড়া, আসন্ন রমজান মাসে বড় অংকের অর্থ বহনের ক্ষেত্রে মানুষ যাতে পুলিশের সহযোগীতা চায়, এ নিয়ে সিলেট ভয়েস তাদের লেখনির মাধ্যমে মানুষকে সচেতন করবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

অনুষ্ঠানে ‘দৈনিক সিলেটের দিনরাত’র প্রধান সম্পাদক ও জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক আল আজাদ বলেন, ২০১০ সালের দিকে প্রথম অনলাইন নিউজ পোর্টালের যে অগ্রযাত্রা শুরু হয়েছে, দিনে দিনে তা বাড়ছে। এ যাত্রায় শামিল হয়েছে সিলেটের অসংখ্য নিউজ পোর্টাল। কিন্তু দু’একটি ছাড়া মানের দিক থেকে কারো অগ্রগতি হয়নি। সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন উপস্থাপনার মাধ্যমে সিলেট ভয়েস অনেক দূর এগিয়ে যাবে বলে তিনি প্রত্যাশা ব্যাক্ত করেন।

এ সময় মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম কোনো দলের প্রতি অনুগত না থেকে বাস্তবভিত্তিক ও বস্তুনিষ্ট সংবাদ প্রচারে সিলেট ভয়েসকে সচেষ্ট থাকার পরামর্শ দেন।

সাংবাদিক ও লেখক অপূর্ব শর্মা বলেন, বিরুদ্ধাচারণ মেনে নিয়েই সাংবাদিকরা সাংবাদিকতা করেন। আর সিলেট ভয়েসের সাথে জড়িত সবার সাথেই ব্যক্তিগত পরিচয় রয়েছে। তারা সবাই একেকটা দক্ষ হাত। এই হাতগুলো যদি ঠিক মতো কাজ করে তাহলে সিলেট ভয়েস অনেক দূর এগিয়ে যাবে।

অনুষ্ঠানে সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শাহ দিদার আলম নবেল বলেন, একসময় অনলাইন পত্রিকা ভূইফোঁড় সাংবাদিকদের দখলে ছিলো। কিন্তু আজ অনলাইন পত্রিকাগুলো মূল ধারার সাংবাদিকদের দখলে। পেশাদারিত্ব দিয়েই এ অগ্রযাত্রা আরো তরান্বিত হবে এবং কর্মতৎপরতা দিয়ে সিলেট ভয়েস তার অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছাবে।

তিনি বলেন, অনেক সময় ভালো সাংবাদিক পাওয়া যায় কিন্তু ভালো মানুষ পাওয়া যায় না। আবার অনেক সময় ভালো মানুষ পাওয়া যায়, কিন্তু ভালো সাংবাদিক পাওয়া যায় না। এ ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম হচ্ছে সিলেট ভয়েস। সিলেট ভয়েস পরিবারে একসাথে এই দুয়ের সমন্বয় ঘটেছে।

সিলেটটুডে টুয়েন্টিফোর ডটকমের সম্পাদক আব্দুল আলীম শাহ বলেন, বিশ্বে বিরল দেশ বাংলাদেশ। যেখানে এতো এতো অনলাইন নিউজ পোর্টাল কিন্তু একটিরও অনুমোদন নেই। আগের বক্তার কথা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সত্য নির্ভর সংবাদ প্রকাশে যদি কোনো সংবাদ ব্যক্তির বিপক্ষে চলে যায় তাহলে সেটি অন্যায় নয়। সবার আগে সংবাদ নয়, বরং সঠিক সংবাদ প্রকাশই হোক মুখ্য।

সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট সিলেট’র সহ সভাপতি শামসুল আলম সেলিম বলেন, নামে সিলেট ভয়েস হলেও একদিন বিশ্বের পুরো আকাশ সিলেট ভয়েসের নিয়ন্ত্রণে থাকবে। তিনি এ অগ্রযাত্রার মধ্য দিয়ে সিলেটের হারিয়ে যাওয়া সংস্কৃতি খুঁজে বের করতে সিলেট ভয়েসকে পরামর্শ দেন।

সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সহযোগী অধ্যাপক প্রনব কান্তি দেব বলেন, সিলেটের অন্যসব অনলাইন পোর্টালের তুলনায় সিলেট ভয়েস কিছুটা ব্যতিক্রম। সংবাদ উপস্থাপনার ক্ষেত্রেও তারা নতুন নতুন চিন্তা ধারার প্রতিফলন ঘটাবে। এসময় তিনি সিলেট ভয়েসের সাফল্য কামনা করেন।

অনুষ্ঠানে ইলেকট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের (ইমজা) সভাপতি আশরাফুল কবির বলেন, সিলেট ভয়েস সিলেটের কথা বলবে। সমাজের কথা বলবে। পরিবেশ বিপর্যয়ের বিরুদ্ধে কথা বলবে। মানুষের কথা বলবে।

সম্মিলিত নাট্য পরিষদ সিলেটের সাধারণ সম্পাদক রজত কান্তি গুপ্ত বলেন, অনানুষ্ঠানিক শুরুর পর থেকেই সিলেট ভয়েস ডট কম যেভাবে দায়িত্ব নিয়ে তাদের কাজ করছে, তা সিলেটের অনেক অনলাইনে সচরাচর দেখা যায় না। তিনি আশা প্রকাশ করেন, নিয়মিত সংবাদের পাশাপাশি সিলেটের পর্যটন শিল্প নিয়ে সিলেট ভয়েস কাজ করবে এবং সিলেটের নিজস্ব সংস্কৃতি বিশ্বের দরবারে পৌঁছে দেবে।

নারী নেত্রী ইন্দ্রানী সেন বলেন, সিলেট ভয়েসে যারা কাজ করছেন তারা বেশির ভাগই সংস্কৃতিকর্মী। সুতরাং তারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্ভাসিত। তারা অবশ্যই মুক্তিযুদ্ধের কথা বলবেন, মানুষের কথা বলবেন।

অনুষ্ঠানে সৃজনশীল গ্রন্থ প্রকাশক রাজীব চৌধুরী বলেন, এখন ঘরে ঘরে নিউজ পোর্টাল। আর বেশির ভাগই কপি-পেস্ট। কপি-পেস্টের এ ধারা থেকে সিলেট ভয়েসকে বেরিয়ে আসতে হবে। তিনি বলেন, নিউজ পোর্টাল দেখি, কিন্তু সাহিত্য পোর্টাল দেখি না। এসব পোর্টাল নিয়ে বাণিজ্যিকভাবে চিন্তা করার আহ্বান জানান তিনি।

সিলেট ভয়েস নিয়ে লক্ষ্য ও আগামীর ভাবনা নিয়ে বক্তব্য রাখেন পোর্টালটির বার্তা সম্পাদক রাজীব রাসেল। তিনি বলেন, অনেক অনলাইন পোর্টালের ভিড়ে সিলেট ভয়েস ভালো কাজ দিয়ে নিজেদের জায়গা করে নিতে চায়। তাই সিলেট ভয়েস সবসময় পাঠকের পরামর্শগুলোকে গুরুত্ব দিয়ে চলবে।

সবশেষে বক্তব্য রাখেন সিলেট ভয়েসের প্রকাশক সেলীনা চৌধুরী। তিনি উপস্থিত সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, সিলেট ভয়েস আপনাদের পরামর্শ ও সহযোগিতায় সামনে এগিয়ে যেতে চায়। তিনি পাঠকের সামনে নির্ভুল সংবাদ পরিবেশনের ব্যাপারে নিজের অঙ্গিকার ব্যক্ত করেন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের উপস্থিত ছিলেন, সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ সভাপতি মনিরুজ্জামান মনির, এটিএন নিউজের সিলেট ব্যুরো প্রধান সজল ছত্রী, দৈনিক বণিক বার্তা ও চ্যানেল নাইন এর সিলেট প্রতিনিধি দেবাশীষ দেবু, ব্যাংকার মুসলেহ আহমদ চৌধুরী মাসুম, কলেজ শিক্ষক ফাহিম আহমদ চৌধুরী, উইমেন ওয়ার্ডসের সম্পাদক অদিতি দাস, বাসদ সিলেটের সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর, সিলেটটুডেটুয়েন্টিফোর’র স্টাফ রিপোর্টার দেবকল্যাণ ধর বাপন, শুভ ধর, বিতার্কিক রেদোয়ান আহমদ, ছাত্রনেতা প্রনব পাল, ব্যবসায়ী তানভির রুহেল, কবি মেকদাদ মেঘ, সংস্কৃতিকর্মী উত্তরা সেন পম্পা, তাহমিনা আহমেদ, আহমেদ আল আমিন, উত্তম কাব্য প্রমুখ।