সিলেটে মৌমাছি পালন কর্মসূচি বাতিল না করার দাবিতে স্মারকলিপি

সিলেটে মৌমাছি পালন কর্মসূচি বাতিল না করার দাবিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনকে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে।

শুক্রবার (২৯ জানুয়ারি) দুপুরে সিলেট নগরীর হজরত শাহজালাল (র.) মাজার অফিসে সিলেট-১ আসনের সংসদ সদস্য ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ. কে আব্দুল মোমেন-এর হাতে সিলেটে মৌমাছি পালন কর্মসূচি বাতিল না করার দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশন বিসিক’র আওতায় সমগ্র দেশে ৬টি উৎপাদন কাম প্রদর্শনী কেন্দ্র রয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় মৌমাছি পালন কর্মসূচি সিলেটের প্রকল্পটি প্রায় ৩০ বছর যাবৎ চালু রয়েছে। সিলেটে সরকার নির্ধারিত মধু উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ১০০ কেজিরও বেশি মধু উৎপাদিত হয়ে দেশে ও বিদেশে রপ্তানি হচ্ছে। এছাড়াও জনগণ মধু ক্রয় করে স্বাস্থ্য ও পুষ্টি চাহিদা পূরণ করে আসছে। সিলেটে এ প্রকল্পের আওতায় আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টি প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষা ও কৃষি ফার্মের গুরুত্বারোপসহ বিভিন্ন দিক বিবেচনায় সরকার নির্ধারিত সময় সাপেক্ষে প্রতি বছর নিয়মিত প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে। প্রশিক্ষণ লব্ধ অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে অত্র অঞ্চলের বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানের সুবর্ণ সুযোগ সৃষ্টি হয়ে দিন দিন মধু চাষির সংখ্যা বেড়েই চলেছে। এতে অত্র অঞ্চলে ঔষধিগুণ সম্পন্ন মধুর চাহিদা বাড়ছে এবং পাশাপাশি পরাগায়ণ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে মৌমাছি ফসল উৎপাদনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। যার ফলশ্রুতিতে স্বাস্থ্যবান সুস্থ জাতি গঠনে দীর্ঘদিন যাবৎ পরিচালিত সরকারের এ প্রকল্প সিলেট অঞ্চলের চাহিদার পাশাপাশি সমগ্র দেশ তথা বিশ্বে মধু রপ্তানির প্রক্রিয়া দিন দিন বেড়েই চলছে।

স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, সরকার পরিচালিত সম্ভাবনাময় প্রকল্পটি সুদীর্ঘ ৩০ বছর যাবৎ মধু চাষে আনন্দময় কর্মসংস্থানটি বর্তমান বিসিক চেয়ারম্যান মোস্তাক হাসান এনডিসি সিলেটের প্রকল্পটি বাতিল করে তার নিজ জেলা সিরাজগঞ্জে স্থানান্তরের সিদ্ধান্তে সিলেট অঞ্চলের আপামর জনতা ও প্রশিক্ষিত যুবকরা এবং প্রত্যক্ষ-পরোক্ষভাবে মধুচাষে সম্পৃক্ত লোকজন হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়ায় সংকটময় পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। বর্তমান সরকার রাষ্ট্র পরিচালনায় বিগত সকল ইতিহাস পেছনে ফেলে উন্নয়নের রোল মডেল সৃষ্টি করেছে। উন্নয়নকামী সরকারের মধু চাষ প্রকল্প সম্প্রসারণ না করে বাতিল ও স্থানান্তর প্রক্রিয়া উন্নয়ন কর্মকান্ডকে ব্যাহত করছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ. কে আব্দুল মোমেনকে স্মারকলিপিতে প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন, মো. সুহাইল আহমেদ চৌধুরী, মো. এনামুল ইসলাম খান, মো. সাহ জাহান, মো. শামছুল আলম (রুবেল), মো. মইনুল হক, মো. জসিম উদ্দিন, মো. আজিজুর রহমান, মো. কাওসারুল আম্বিয়া মো. সুহাইল আদমেদ চৌধুরী, মো. এনামুল ইসলাম খান, মো. সাহ জাহান, মো. শামছুল আলম (রুবেল), মো. মইনুল হক, মো. জসিম উদ্দিন, মো. আজিজুর রহমান, মো. কাওসারুল আম্বিয়া, দোলক চৌধুরী, মো. সাহাব উদ্দিন, মো. রায়হান, উত্তম কুমার সিংহ, মো. আব্দুল বাসিত, মো. আখতার আহমদ, মো. শামীম আহমদ, মো. সিরাজ উদ্দিন, মো. আরাফাত আহমদ সুজন, মো. নজরুল ইসলাম মো. সৈকত আলী, মো. আরাফাত ও দেবনাথ।