শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বড় জয় নিউজিল্যান্ডের

0
0

সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে আজ বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই। মেঘমুক্ত আকাশে দিনের একমাত্র ম্যাচে মাঠে নেমেছিল শ্রীলঙ্কা ও নিউজিল্যান্ড। লঙ্কানদের ব্যাটিং বিপর্যয়ে ৬৫ রানে জয় পায় কিউইরা।

লঙ্কানদের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল নিউজিল্যান্ড। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৬৭ রান করে নিউজিল্যান্ড। ইনিংসের শুরুতেই মাত্র ২ রানে ফিন অ্যালেনের উইকেট হারায় নিউজিল্যান্ড। ইনিংসের ৭ রানে উইকেটরক্ষক ডেভন কনওয়ের উইকেটও খোয়ায় কিউইরা। দলের ১৫ রান হতেই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনও বিদায় হন।

পনের রানেই তিন উইকেট হারিয়ে বিপাকে পড়ে নিউজিল্যান্ড। স্লো উইকেটে একপ্রান্তে দলের ঢাল হয়ে আগলে রাখেন গ্লেন ফিলিপস। তাকে সঙ্গ দেন ড্যারিল মিচেল। দলীয় ৯৯ রানে থামে তাদের জুটি। ২৪ বলে ২২ রান করে মিচেল বিদায় হন। দলের ১২৯ রানে জেমস নিশামকে ফেরত পাঠান কাসুন রাজিথা।

দলের বিপর্যয় থেকে কাটিয়ে লড়াকু সংগ্রহের দিকে নিয়ে যাওয়ার সবচেয়ে বড় ভূমিকা ছিল ফিলিপসের। তার ব্যাট থেকে আসে ৬৪ বলে ১০৪ রানের ঝোড়ো ইনিংস। এবারের অষ্টম আসরে এটা দ্বিতীয় শতক। এর আগে রাইলি রুশোর ব্যাট থেকে আসে প্রথম শতকটি। দলের ১৬২ রানে থামে তার ব্যাট। ততক্ষণে লঙ্কানদের দিকে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য ছুঁড়ে দিতে সক্ষম হয় নিউজিল্যান্ড। তার ইনিংসটি সাজানো ছিল দশটি চার ও চারটি ছয়ে। শেষ পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডের ইনিংস থামে ৭ উইকেটে ১৬৭ রানে।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ৮ রানেই ৪ উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা। ওপেনার পাথুম নিশাঙ্কা দলের রানের খাতা খোলার আগে টিম সাউদির বলে এলবিডব্লিউ‍‍`র ফাঁদে পড়েন। দলের ৪ রানে কুশাল মেন্ডিস ট্রেন্ড বোল্টকে উইকেট বিলিয়ে ফেরেন। দলের পাঁচ রানে ধনঞ্জয়া ডি সিলভাকেও বিদায় করেন বোল্ট। ইনিংসের ৮ রানে চারিথ আশালাঙ্কার উইকেট নিয়ে প্রথমদিকের ৩ ব্যাটারকেই ফেরান বোল্ট।

দলের ভয়াবহ বিপর্যয়ে ভানুকা রাজাপাকশে কিছুটা আশার আলো দেখান । তার ব্যাট থেকে আসে ২২ বলে ৩৪ রান। তাকে লকি ফার্গুসন আউট করে শ্রীলঙ্কার নিভু নিভু আশার প্রদীপও নিভিয়ে দেন। তবে অধিনায়ক দাসুন শানাকা দলের চাপ সামলানোর দায়িত্ব তুলে নিলেও তাকে বাকি ব্যাটাররা সঙ্গ দেননি। তার ব্যাট থেকে আসে ৩২ বলে ৩৫ রান। দলের ৯৩ রানে তিনি আউট হন। লঙ্কানদের ইনিংস থামে ১৯।২ ওভারে। সবকয়টি উইকেট হারিয়ে ১০২ রান তোলে তারা।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হেরে এশিয়ার শিরোপাধারীদের বিশ্বকাপের স্বপ্ন একপ্রকার শেষ। তিন ম্যাচে তাদের এক জয় ও ২ পরাজয় নিয়ে টেবিলে পঞ্চম স্থান। অন্যদিকে, কিউইরা গ্রুপ ১ এর পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে আছে।