রোহিঙ্গা বিষয়ে শেখ হাসিনাকে ট্রাম্পের চিঠি

বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা উদ্বাস্তুদের মিয়ানমারে ফিরিয়ে নিতে যুক্তরাষ্ট্র চাপ অব্যাহত রাখবে বলে আশ্বস্ত করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে পাঠানো একটি চিঠিতে এ আশ্বাস দেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এ বিষয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

বৃহস্পতিবার (০৩ মে) বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করে ট্রাম্পের পাঠানো চিঠিটি হস্তান্তর করেন ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা স্টিফেনস ব্লুম বার্নিকাট।

চিঠিতে ট্রাম্প প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, রোহিঙ্গারা যাতে তাদের মাতৃভূমিতে নিরাপদ প্রত্যাবর্তন করতে পারে সেজন্য প্রয়োজনীয় অবস্থা সৃষ্টিতে যুক্তরাষ্ট্র মিয়ানমারের ওপর চাপ অব্যহত রাখবে।

এর আগে গত বছরের সেপ্টেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রে জাতিসংঘ অধিবেশনে মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের ব্যাপারে ট্রাম্পকে অবহিত করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে সময় রয়টার্সকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, শরণার্থীদের নিয়ে তিনি কোনও মন্তব্য করেননি। শরণার্থীদের বিষয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্পের অবস্থান পরিষ্কার। সেজন্য রোহিঙ্গা মুসলিম শরণার্থীদের বিষয়ে ট্রাম্পের সহায়তা চেয়ে কোনও কাজ হবে না।

তবে এর পরদিনই রোহিঙ্গা সংকট অবসানে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদকে ‘বলিষ্ঠ ও দ্রুত’ পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন ট্রাম্প। তার পক্ষে এই ঘোষণা দেন দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স। পেন্স বলেন, দ্রুত রোহিঙ্গা সংকটের অবসান না হলে এটা ঘৃণা ও বিশৃঙ্খলার বীজ বপন করবে, যা প্রজন্মের পর প্রজন্ম ওই অঞ্চলকে গ্রাস করতে পারে। আমাদের সবার জন্যই তা হুমকি হয়ে উঠতে পারে।

উল্লেখ্য গত বছরের ২৪ আগস্ট মিয়ানমারের রাখাইনে বিদ্রোহীরা বেশ কয়েকটি নিরাপত্তা চৌকিতে হামলা চালায়। এর পরপরই দেশটির সেনাবাহিনী রাখাইন অভিযান শুরু করে। রোহিঙ্গাদের ওপর নির্মম গণহত্যা চালায় মিয়ানমারের সেনারা। এরপর থেকে প্রায় ৮ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদশে আশ্রয় নেয়।