রিয়াল ছেড়ে জুভেন্টাসে রোনালদো?

বিশ্বকাপ ফুটবলের শেষ ষোল থেকে ছিটকে গেছে তাঁর দল পর্তুগাল। বিশ্বকাপে প্রথম হ্যাটট্রিক করে আলোচনায় ছিলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত নক আউট পর্ব থেকে বাদ পড়ার আগে করেছেন মোট চার গোল।

বিশ্বকাপের আলোচনায় আর নেই রোনালদো। তবে আছেন ক্লাব ফুটবলের আলোচনায়। বিশ্বকাপের আগেই জোর গুঞ্জন ছিল, বর্তমান ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ ছাড়ছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। কিন্তু কোথায় যাচ্ছেন, তা ঠিক বোঝা যাচ্ছিল না।

নিজের দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দিয়ে দলকে জিতিয়েছিলেন হ্যাটট্রিক চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা। যদিও লা লিগা শিরোপা ঘরে তুলতে পারেনি লস ব্লাঙ্কোসরা। এর পর বিশ্বকাপের ঠিক আগ মুহুর্তে ধাক্কা খায় রিয়াল মাদ্রিদ। তাদের হ্যাটট্রিক শিরোপা জয়ের নায়ক কোচ জিনেদিন জিদান হুট করেই পদত্যাগের ঘোষণা দেন। এরপর রোনালদোর বিদায়ের গুঞ্জনটি আরও জোরালো হয়।

বিশ্বকাপ চলাকালীন সময়ে প্রকাশ পায়, রোনালদোর রিলিজ ক্লজ ১০০ কোটি ইউরো থেকে কমিয়ে ১২০ মিলিয়ন ইউরোতে নামিয়ে এনেছে রিয়াল মাদ্রিদ। এর কারণ হিসাবে বলা হয়, কোনও দ্বিধা ছাড়াই যেন অন্য ক্লাবগুলো রোনালদোকে কিনে নিতে পারে। এমনটাই দাবি স্প্যানিশ গণমাধ্যম এল চিরিগুইতোর।

তাদের দাবি অনুযায়ী, ১০০ মিলিয়ন ইউরোতে রিয়াল মাদ্রিদের সুপারস্টারকে কিনতে যাচ্ছে ইতালির ক্লাব জুভেন্টাস। ৪ বছরের চুক্তিতে বছরে ৩০ মিলিয়ন ইউরো দিতে প্রস্তুত তারা। আরেক পত্রিকা মার্কা বলছে, জুভেন্টাসের অফার গ্রহণও করেছে রিয়াল মাদ্রিদ।

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ৮ বছর পর রিয়াল ছাড়তে যাচ্ছেন পাঁচবারের ফিফা বর্ষসেরা এই ফুটবলার। ২০০৯-১০ মৌসুমে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে রেকর্ড ৯৪ মিলিয়ন ইউরোতে রোনালদোকে দলে নিয়েছিল স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদ। রিয়ালের জার্সি গায়ে ক্লাবকে একাধিক সাফল্য এনে দেয়ার পাশাপাশি নিজের ব্যক্তিগত ঝুলিও সমৃদ্ধ করেন এই তারকা। এসময় রিয়াল পরেছে চারবারের ইউরোপ সেরার মুকুট।