রাজীবের হাত বিচ্ছিন্ন মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ১০ জুন

রাজধানীর কাওরান বাজারে দুই বাসের চাপায় হাত হারানোর পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যাওয়া তিতুমীর কলেজে ছাত্র রাজীব হোসেনের হাত বিচ্ছিন্নের ঘটনায় করা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ১০ জুন দিন ধার্য করেছেন আদালত।

বুধবার (৯ মে) মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য ছিল। কিন্তু শাহবাগ থানা পুলিশের (উপ-পরিদর্শক) আফতাব আলী মামলার তদন্ত প্রতিবেদন জমা না দেওয়ায় ঢাকা মহানগর হাকিম গোলাম নবী নতুন এ দিন ধার্য করেন।

আদালতের সংশ্লিষ্ট থানার সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা (জিআর) মাহমুদুর রহমান এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, ২৩ এপ্রিল মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পেনাল কোডের ৩০৪ (খ) ধারায় বেপরোয়া যান চলালের কারণে মৃত্যুর ধারায় সংযোজন করার অনুমতি চাইলে আদালত তা মঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য, গত ৩ এপ্রিল বিআরটিসির একটি দোতলা বাসের পেছনের দরজায় দাঁড়িয়ে ছিলেন রাজীব। তার ডান হাতটি বাসের গেটের বাইরে বেরিয়ে ছিল। এসময় স্বজন পরিবহনের একটি বাস বিআরটিসির দোতলা বাসটিকে ওভারটেকের চেষ্টা করে। দুই বাসের মাঝে চাপা পড়ে রাজীবের হাতটি শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। ১৭ এপ্রিল ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

ওই ঘটনায় গ্রেপ্তার দুই বাসের চালক বিআরটিসির ওয়াহিদ (৩৫) ও স্বজন বাসের চালক খোরশেদ (৫০) বর্তমানে কারাগারে আছেন। আর গতকাল বুধবার এক রায়ে রাজীবের পরিবারকে এক কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার জন্য ওই দুই বাস মালিককে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।