যুক্তরাজ্যের ব্রেক্সিট বিষয়ক দুই মন্ত্রীর পদত্যাগ

যুক্তরাজ্যের ব্রেক্সিট বিষয়ক মন্ত্রী ডেভিড ডেভিস ও উপমন্ত্রী স্টিভেন বেকার পদত্যাগ করেছেন। প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে তার ব্রেক্সিট পরিকল্পনার জন্য মন্ত্রীপরিষদের পর্যাপ্ত সমর্থন নিশ্চিত করার কয়েকদিন পরই এ সিদ্ধান্ত নিলেন ডেভিস।

২০১৬ সালে ব্রেক্সিট বিষয়ক মন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ পান ডেভিস। মন্ত্রী হিসেবে তার দায়িত্ব ছিল যুক্তরাজ্য সরকারের হয়ে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের (ইইউ) সঙ্গে এই ইস্যুতে আলোচনা করা।

এদিকে, ডেভিস পদত্যাগ করার কিছুক্ষণের মধ্যেই তার সহকারী ও ব্রেক্সিট বিষয়ক উপমন্ত্রী স্টিভেন বেকারও পদত্যাগ করেন। আজ সোমবার (০৯ জুলাই) পার্লামেন্ট সদস্য ও সহকর্মীদের সঙ্গে ব্রেক্সিট ইস্যুতে বৈঠকে বসার কথা রয়েছে মে’র। এর আগেই পদত্যাগ করলেন তার ব্রেক্সিট বিষয়ক দুই মন্ত্রী।

ডেভিস তার পদত্যাগপত্রে প্রধানমন্ত্রী মেকে উদ্দেশ্য করে লিখেছেন, যুক্তরাজ্যের বর্তমান নীতিমালা ও কৌশলের ধরণ থেকে এমন আভাস পাওয়া যাচ্ছে যে যুক্তরাজ্য ইইউ’র কাস্টমস জোট ও একক বাজার থেকে বের হয়ে আসবে এমন সম্ভাবনা কম।

তিনি বলেন, বর্তমানে যুক্তরাজ্য সরকার যে পদ্ধতিতে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে, তাতে ইইউ থেকে কেবল দাবির সংখ্যা বাড়তেই থাকবে। ডেভিস বলেন, বর্তমান নীতিমালার সাধারণ গতিপথ, আলোচনায় আমাদের অবস্থান দুর্বল করে তুলবে ও সম্ভবত সেখান থেকে বের হবার উপায় থাকবে না।

ডেভিসের এই অভিযোগের জবাবে মে বলেন, ‘শুক্রবার মন্ত্রীপরিষদে আমরা এ বিষয়ে যে নীতিমালায় সম্মত হয়েছি তা নিয়ে আপনার এই বৈশিষ্টকরনের সঙ্গে একমত হতে পারলাম না। সেখানে আপনার নীতিমালা নিয়ে আপনার চরিত্রাঙ্কনের সঙ্গে আমি একমত নই।

ডেভিসের পদত্যাগে দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী মে। তবে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে ব্রেক্সিট আলোচনায় অবদানের জন্য তিনি তাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

সূত্র : বিবিসি