যানজট থেকে মুক্তির দাবিতে বিশ্বনাথে মানববন্ধন

সিলেটের বিশ্বনাথে যানজট নিয়ে বহুবার আন্দোলন হয়েছে। কিন্তু সাময়িক পদক্ষেপ নিলেও স্থায়ী সমাধানে প্রশাসন নীরব ভূমিকা পালন করছে। বিভিন্ন সময় প্রশাসনের তরফ থেকে যানজট কমাতে অবৈধ দোকানঘর উচ্ছেদ করলেও তা যেন লোক দেখানো!

এ অবস্থায় যানজটমুক্ত বিশ্বনাথের দাবিতে রোববার (২৮ আগস্ট) সকাল ১১টায় বাসিয়া সেতুর উপরে মানববন্ধন করেছে পিস ফ্যাসিলিটেটর গ্রুপ (পিএফজি) বিশ্বনাথ।

পিএফজি বিশ্বনাথ উপজেলা অ্যাম্বাসেডর মোহাম্মদ আসাদুজামান আসাদের সভাপতি, কো-অর্ডিনেটর তজম্মুল আলী রাজু ও সদস্য বদরুল ইসলাম মহসিনের যৌথ পরিচালনায় মানববন্ধনপূর্ব আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, যানজটের কারণে বিশ্বনাথ পৌর শহরবাসী ও উপজেলাবাসীকে মারাত্মক দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। যানজটের ধকল সইতে সইতে তাদের স্বাভাবিক মানসিক অবস্থার পরিবর্তন হয়ে গেছে। আজকাল হঠাৎ যানজট না থাকলে মনে হয় এ যেন অস্বাভাবিক ঘটনা!

তারা বলেন, যানজটের কারণে সদরে ৮টি স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসাগামী শিক্ষার্থী ও রোগীদের চলাচল করতে রীতিমতো হিমশিম খেতে হচ্ছে। বিশেষ করে সড়কে যত্রতত্র যানবাহন রাখায় প্রতিনিয়ত লেগে থাকে যানজট।

বক্তারা যানজট নিরসনে প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানান।

মানববন্ধনপূর্ব সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন বিশ্বনাথ সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছয়ফুল হক।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহমদ, সাবেক সভাপতি মজম্মিল আলী, ট্রাফিকের টিআই কুতুবউদ্দিন, খেলাফত মজলিস বিশ্বনাথ উপজেলার সভাপতি কাজী মাওলানা আব্দুল ওয়াদুদ, গণফোরাম নেতা নজরুল ইসলাম আজাদ, ব্যবসায়ী জামাল আহমদ, জাতীয় পার্টির নেতা আব্দুল মতিন, ইউপি সদস্য রহমত আলী, ইউপি সদস্য আব্দুল মজিদ, পিএফজি বিশ্বনাথ উপজেলার সদস্য জালাল উদ্দিন চেয়ারম্যান, জয়নাল আবেদীন, মকদ্দছ আলী, বসির আহমদ, আলতাব হোসেন, প্রভাষক আফিয়া বেগম, রাসনা বেগম, সিতাব আলী, হোসাইন আহমদ শাহিন, ফরিদ মিয়া, জয়নাল মিয়া, রুহেলা বেগম, বিশ্বনাথ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নবীন সুহেল, প্রচার সম্পাদক মোসাহিদ আলী, সদস্য অসিত রঞ্জন দেব, সফিকুল ইসলাম শফিক, ব্যবসায়ী সমরেন্দ্র বৈদ্য সমর, জয়ন্ত দাস, যুবলীগ নেতা সেলন মিয়া, ছাত্রলীগ নেতা সেলিম মিয়া, কলেজ শিক্ষার্থী তামান্না বেগম মিলি, প্রবীণ ব্যক্তিত্ব আব্দুন নূর, সংগঠক আয়াছ আলীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার বিপুল সংখ্যক মানুষ।