মৌলভীবাজারে বন্যার্তদের ত্রাণ দিলো র‍্যাব

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় সাম্প্রতিক ভয়াবহ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ৫২০ পরিবারের মধ্যে র‌্যাবের উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে।

বুধবার (২৭ জুন) বেলা সাড়ে ১১টায় উপজেলার পতনঊষার ইউনিয়নের শ্রীসূর্য্য সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে র‌্যাব ফোর্সেস এর আয়োজনে এ ত্রাণ বিতরণ অনুষ্টিত হয়।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ত্রাণ বিতরণ কর্মসুচীর উদ্বোধন করেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজির আহমদ বিপিএম (বার)। এ সময় উপস্থিত ছিলেন র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন) আনোয়ার লতিফ খান, ডাইরেক্টর অপারেশন লেফটেনেন্ট মাহবুব, বাংলাদেশ পুলিশ সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি কামরুল হাসান, মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. তোফায়েল ইসলাম, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহজালাল, কমলগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো: রফিকুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ মাহমুদুল হক, মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র মো: ফজলুর রহমান, পতনঊষার ইউপি চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার তওফিক আহমদ বাবুসহ র‌্যাব ও পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে ২ নং পতনঊষার ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে র‌্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজির আহমদ বিপিএম (বার)-কে সম্মাননা ক্রেস্ট ও ফুলের তোড়া এবং শ্রীসূর্য্য সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে ফুলের তোড়া প্রদান করা হয়।

ত্রাণ বিতরণ শেষে র‌্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজির আহমদ বিপিএম (বার) এক প্রেস ব্রিফিং এ সাংবাদিকদের বলেন, জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, মাদক নির্মূলে র‌্যাব ইতিমধ্যে সফলতার স্বাক্ষর রেখেছে। মাদকের কবল থেকে রক্ষা করতে হলে জনপ্রতিনিধিসহ সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। মাদক নির্মূলে শুধু গ্রেপ্তার করলেই হবে না। তাদের চিকিৎসা প্রদান ও পুনর্বাসন করতে হবে।

সাম্প্রতিক বন্যায় সরকারের তড়িৎ পদক্ষেপ গ্রহণ, প্রশাসন, সেনাবাহিনী, পুলিশ প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের ভূয়সী প্রশংসা করে তিনি বলেন, সামাজিক দায়বদ্ধতার অংশ হিসেবে সামান্য ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে আজ আমরা এখানে এসেছি সহমর্মিতা প্রকাশ করার জন্য। পরবর্তী চ্যালেঞ্জ হবে বন্যার্তদের পুনর্বাসন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বে সকল শ্রেণি-পেশার জনগনের সহযোগিতায় জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে দেশ অনেক দূর এগিয়ে গেছে। মাদকের সরবরাহ ও চাহিদাকে বন্ধ করতে হবে। এ জন্য প্রথমে পরিবার ও সমাজকে এগিয়ে আসতে হবে।