মিয়াদ হত্যা মামলায় রায়হানসহ ৫ আসামি কারাগারে

নগরীর টিলাগড়ে ছাত্রলীগ কর্মী ওমর আহমদ মিয়াদ (২২) হত্যা মামলার এজহারভুক্ত পাঁচ আসামিকে কারাগারে প্রেরণ করেছেন আদালত।

বুধবার (২৭ জুন) দুপুরে সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রায়হান চৌধুরীসহ এজাহারভুক্ত ৫ আসামি সিলেট মহানগর মুখ্য হাকিম আবুল কাশেমের আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইলে আদালত তা নামঞ্জুর করে তাদেরকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

কারাগারে পাঠানো মিয়াদ হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামিরা হলেন- সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রায়হান চৌধুরী, সারোয়ার হোসেন চৌধুরী, রাফিউল করিম মাসুম, ফাহিম শাহ ও জুবায়ের খান।

মিয়াদ সিলেটের লিডিং ইউনিভার্সিটির আইন বিভাগের শিক্ষার্থী এবং সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হিরণ মাহমুদ নিপু গ্রুপের কর্মী ছিলেন। গত বছরের ১৬ ই মার্চ নগরীর টিলাগড় এলাকায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয় মিয়াদকে।

এরপর ১৮ই মার্চ নিহতের বাবা আকুল মিয়া বাদী হয়ে শাহপরান (রহঃ) থানায় ১০ জনের নাম উল্লেখ করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শাহপরান (রহঃ) থানার এসআই প্রদীপ সরকার এজাহারভুক্ত রায়হানসহ ছয়জনের নাম বাদ দিয়ে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। বাদীপক্ষ চার্জশিটের বিরুদ্ধে আদালতে নারাজি দাখিল করলে শুনানি শেষে আদালত উক্ত ছয়জনকে চার্জশিটে অন্তর্ভুক্ত করার নির্দেশ দিয়ে এজাহারভুক্ত ১০ আসামির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

পরবর্তীতে তারা সিলেট মহানগর দ্বিতীয় আদালত থেকে জামিন নেন। এ নিয়ে মামলার বাদীপক্ষ সিলেট মহানগর নগর দায়রা জজ আদালতে রিভিশন (মামলা নং -৮৭/২০১৮) দায়ের করেন।

সোমবার (২৫ জুন) শুনানি শেষে আদালত সিলেট মহানগর দ্বিতীয় আদালতের জামিন দেওয়া অবৈধ ঘোষণা করে আসামিদের ২৮ জুনের মধ্যে সিলেট চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেন।

তার প্রেক্ষিতে আজ সিলেট মূখ্য মহানগর হাকিম আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চান এই পাঁচ অভিযুক্ত। আদ্যালত তাদের জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।