মিসরের কঠিন পরীক্ষার ম্যাচে খেলবেন সালাহ

উরুগুয়ের বিপক্ষে শেষ মুহূর্তের গোলে পরাজয়বরণ করতে হয়েছিল মিসরকে। সেই পরাজয় সাইড বেঞ্চে বসে দেখতে হয়েছে দলের সবচেয়ে বড় তারকা মোহামেদ সালাহকে। সালাহ খেললে হয়ত ম্যাচের ফলাফল অন্যরকম হতে পারতো- এমনটা মনে করছেন মিসর সমর্থকরা।

উরুগুয়ের বিপক্ষে পরাজয়ের ফলে দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে মিসরের। আজ হারলেই বিদায় নিশ্চিত হয়ে যাবে তাদের। কারণ ইতোমধ্যেই এ গ্রুপ থেকে প্রথম ম্যাচে জয় পেয়েছে উরুগুয়ে ও স্বাগতিক রাশিয়া। আজ রাশিয়া জয়ী হলেই প্রথম দল হিসেবে দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত হবে তাদের।

সেই চাপ কাটিয়ে উঠতে গ্রুপ ‘এ’ এর ম্যাচে আজ মঙ্গলবার (১৯ জুন) নীল নদের দেশটি লড়বে স্বাগতিক রাশিয়ার সঙ্গে। ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত ১২টায়। খেলাটি সরাসরি সম্প্রচার করবে বিটিভি, নাগরিক টিভি, মাছরাঙা, সনি ইএসপিএন, সনি টেন টু ও টেন স্পোর্টস।

প্রায় শতভাগ ফিট থাকার পরও কোচ হেক্টর কুপার সালাহকে উরুগুয়ের বিপক্ষে নামাননি। তবে দলের এমন কঠিন মুহূর্তে কিছুতেই মাঠের বাইরে থাকতে রাজি নন সালাহ। মঙ্গলবার মাঠে থাকবেন এ সময়ের অন্যতম আলোচিত এই ফুটবলার।

অন্তত কোচ কুপারের বক্তব্যে স্বস্তি পেতেই পারেন মিসরের সমর্থকরা। কুপার বলেছেন, প্রতিটি ম্যাচের আগেই খেলোয়াড়দের ফিটনেস পরীক্ষা হয়। সালাহ’রও হয়েছে। আশা করছি ও খেলবে। এই ম্যাচটা আমাদের জন্য বাঁচা মরার। এখানে সেরা শক্তি নিয়েই ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। আশা করছি জয় নিয়েই ফিরতে পারব।

ওদিকে মিসরের সঙ্গে মুখোমুখি হওয়ার আগে দলের মনোবলকে আরো চাঙ্গা করতে রাশিয়ার খেলোয়াড়দের সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। আর সবাইকে এভাবেই খেলে যেতে বলেছেন তিনি। প্রেসিডেন্টের ফোনের খবরটি জানিয়েছেন দলের কোচ স্তানিস্লাভ চেরচেসোভ।

চেরচেসোভ বলেন, প্রথম ম্যাচের পর প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ফোন করে অভিনন্দন জানিয়েছেন সবাইকে আর এভাবেই খেলে যেতে বলেছেন। উনার ফোন পেয়ে গোটা দল আরো চাঙ্গা হয়ে উঠেছে।

দ্বিতীয় রাউন্ডে যাওয়াটা রাশানদের জন্য সহজ হবে না তারাও জানে। কেননা এ ম্যাচে মূলত তাদের লড়াই করতে হবে সালাহ এর বিরুদ্ধে। কারণ, তার হাত ধরেই দীর্ঘ ২৮ বছর পর বিশ্বকাপের মূল মঞ্চে মিসর। ভক্তদের প্রত্যাশার পারদটাও ঠিক পিরামিডের মতো উঁচু হয়ে উঠেছে।

মিসরের ম্যানেজার ইহাব লেহতার জানিয়েছেন, সালাহ তো দলের সঙ্গে ভাল ভাবেই অনুশীলন করছে। দলের টেকনিক্যাল কর্মীরা আমাদের জানিয়েছেন, রাশিয়া ম্যাচ খেলার জন্য ও পুরোপুরি তৈরিও। রাশিয়াকে হারাতেই হবে। সন্দেহ নেই এটা কঠিন কাজ। এমন সংকটে সালাহকে তো দরকার।

সালাহ এর ওপর দলের প্রত্যাশা বেশি থাকলেও ভেঙে পড়ছেন না তিনি। সালাহ বলেন, প্রত্যাশার চাপ আমার উপর মোটেই বোঝা নয়। ভক্তরা আমার পাশে আছে। আমাকে কিছু করার দিকে নিয়ে যাচ্ছে ওরা।

এদিকে, সালাহকে আটকাতে আলাদা কৌশল নিয়েও ভাবছে রাশিয়া। দলের কোচ জানান, নিঃসন্দেহে সালাহ অসাধারণ এক ফুটবলার। আমার দৃঢ় বিশ্বাস, তাকে থামানোর সামর্থ্য আমাদের আছে আর আমরা সেটা ঠিকই করে দেখাবো। তবে শুধু সালাহকে নিয়ে পড়ে থাকলেই হবে না, মিসরের অন্যদের নিয়েও ভালমত প্রস্তুতি নিয়েছি আমরা।

এখন দেখার বিষয় ৯০ মিনিটের স্নায়ুর লড়াইয়ে কারা জয়ী হয়। স্নায়ুর যুদ্ধে যারাই কৌশলী ফুটবল খেলবে, তারাই জয়োল্লাসে মেতে ওঠবে। রাশিয়া জিতলে উঠে যাবে দ্বিতীয় রাউন্ডে আর মিসর পরাজিত হলে চোখের জলে সমর্থকদের সঙ্গে তারাও বিদায় নেবে বিশ্বকাপ থেকে।