মধ্যরাতে ব্লাডমুন, কোন জেলায় কখন

শুক্রবার (২৭ জুলাই) মধ্যরাতে দেখা যাবে শতাব্দীর দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ। বাংলাদেশসহ বিশ্বের কোটি কোটি মানুষ এটি দেখতে পারবেন। প্রায় পৌনে দুই ঘণ্টা (১ ঘণ্টা ৪৩ মিনিট) ধরে পুর্ণ চন্দ্রগ্রহণের পাশাপাশি আংশিক গ্রহণ শুরু হবে বাংলাদেশ সময় ১১ টা ১৩ মিনিটে। এমন মহাজাগতিক ঘটনা এই শতাব্দীতে (২০০১ থেকে ২১০০) আর ঘটবে না। এর আগে ২০০০ সালের ১৬ জুলাই ১০৬ মিনিট দীর্ঘস্থায়ী চন্দ্রগ্রহণ দেখা গিয়েছিল; বিংশ শতাব্দীর দীর্ঘ চন্দ্রগ্রহণ ছিল এটি। আরেকটি পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণের জন্য অপেক্ষা করতে হবে ২০২৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। কিন্তু সেই চন্দ্রগ্রহণ এত দীর্ঘ হবে না।

মূলত চন্দ্রগ্রহণের সময় সূর্য, পৃথিবী ও চাঁদ একই সরলরেখায় চলে আসলে পৃথিবীর ছায়ায় চাঁদকে রক্তাভ দেখায়। এ জন্যেই এই চাঁদকে ডাকা হয় ব্লাড মুন।

আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, শুক্রবার বাংলাদেশ সময় রাত ১১টা ১৩ মিনিট ৬ সেকেন্ডে শুরু হওয়া চন্দ্রগ্রহণ শেষ হবে ভোর ৫টা ৩০ মিনিট ২৪ সেকেন্ডে। এই গ্রহণ দেখার জন্য নানা আয়োজন করা হয়েছে গোটা বিশ্বে। ঢাকাতে বিজ্ঞান যাদুঘর ব্লাড মুন দেখার আয়োজন রেখেছে।

বাংলাদেশের কোন জেলায় কখন চন্দ্রগ্রহণ দেখা যাবে:

ঢাকা:
ঢাকার আকাশে চন্দ্রগহণ শুরু হবে রাত ১১টা ১৩ মিনিটি ৬ সেকেন্ডে। রাত ২টা ২১ মিনিট ৪৮ সেকেন্ডে কেন্দ্রীয় গ্রহণ হবে। আর শেষ হবে ভোর ৫টা ৩০ মিনিট ২৪ সেকেন্ডে।

চট্টগ্রাম:
চট্টগ্রামে গ্রহণ শুরু হবে রাত ১১টা ৪ মিনিটে ৩৬ সেকেন্ডে। কেন্দ্রীয় গ্রহণ হবে রাত ২টা ১৩ মিনিট ১৮ সেকেন্ডে, শেষ হবে ভোর ৫টা ২৭ মিনিট ১২ সেকেন্ডে।

সিলেট :
সিলেটের আকাশে চন্দ্র গ্রহণ শুরু হবে ১১ টা ৮ মিনিট ৩৬ সেকেন্ডে। কেন্দ্রীয় গ্রহণ হবে রাত ২ টা ১৭ মিনিট ১৮ সেকেন্ডে আর শেষ হবে ভোর ৫ টা ৩১ মিনিট ১২ সেকেন্ডে।

ময়মনসিংহ:
রাত ১১টা ১৪ মিনিট ৬ সেকেন্ডে ময়মনসিংহে গ্রহণ শুরু হবে। কেন্দ্রীয় গ্রহণ হবে রাত ২টা ২৩ মিনিট ১৮ সেকেন্ডে। গ্রহণ শেষ হবে ভোর ৫টা ২৮ মিনিট ৩০ সেকেন্ডে।

বরিশাল:
বরিশালে গ্রহণ শুরু হবে রাত ১১টা ১১ মিনিট ১৮ সেকেন্ডে। রাত ২টা ২০ মিনিটে কেন্দ্রীয় গ্রহণ হবে। আর গ্রহণ শেষ হবে ভোর ৫টা ৩২ মিনিটি ১২ সেকেন্ডে।

খুলনা:
খুলনায় গ্রহণ শুরু হবে রাত ১১টা ১৪ মিনিটি ৪২ সেকেন্ডে। কেন্দ্রীয় গ্রহণ হবে রাত ২টা ২৫ মিনিটি ৬ সেকেন্ডে। শেষ হবে ভোর ৫টা ৩৩ মিনিটি ৪২ সেকেন্ডে।

রাজশাহী:
রাজশাহীতে রাত ১১টা ২০ মিনিটি ৫৪ সেকেন্ডে গ্রহণ শুরু হবে। কেন্দ্রীয় গ্রহণ হবে রাত ২টা ২৯ মিনিটি ৩৬ সেকেন্ডে, শেষ হবে ভোর ৫টা ৩৬ মিনিটি ৬ সেকেন্ডে।

রংপুর:
রংপুরে গ্রহণ শুরু হবে রাত ১১ টা ২১ মিনিট ১২ সেকেন্ডে। রাত ২টা ২৯ মিনিট ৫৪ সেকেন্ডে কেন্দ্রী গ্রহণ হবে, আর শেষ হবে ভোর ৫টা ৩১ মিনিটি ৩৬ সেকেন্ডে।

এছাড়া অন্যান্য জেলায় রাত ১১ টার কয়েক মিনিট আগে পরে দেখা যাবে ব্লাড মুন।

ব্লাড মুন কি?

জোতির্বিজ্ঞানী ড. শ্যানন স্কমল জানান, সূর্যের আলো পৃথিবীর বায়ুমণ্ডল ছুঁয়ে খানিকটা চাঁদে যায়, সেই আলো পৃথিবীতে আবার আসার পথে অন্যসব রঙ হারিয়ে লাল রঙটি এসে আমাদের চোখে পৌঁছায়। এ কারণে আজকের চাঁদ অনেকটা রক্তিম দেখা যাবে।

জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা বলছেন, চন্দ্রগ্রহণের সময় বরাবরই চাঁদ লাল রং ধারণ করে। এতে চাঁদের কোনো কিছুই পরিবর্তিত হয় না, বরং পৃথিবীর বাতাসকে আমরা কতটা দূষিত করেছি তা বুঝা যায়। চন্দ্রগ্রহণের সময় চাঁদ গাঢ় লাল ধারণ করলে বুঝতে হবে বাতাসে প্রচুর পরিমাণে ধুলিকণা ভাসছে।