ভারতীয় মিডিয়ায় টাইগাররা ‘বেয়াদব’!

নিদাহাস ট্রফির ফাইনালের আগে বাংলাদেশ বিদ্বেষে মেতে উঠেছে ভারতীয়রা। তাতে ভারতীয় সমর্থক, সাবেক ক্রিকেটার, ধারাভাষ্যকারের সাথে এবার যোগ দিল ভারতীয় মিডিয়াও। ‘নিউজ ২৪’ নামে একটি ভারতীয় চ্যানেল বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার ম্যাচ নিয়ে একটি রিপোর্ট করেছে। ১ মিনিট ৫০ সেকেন্ডের ওই রিপোর্টে বাংলাদেশরে বিদ্বেষ করে মিথ্যাচার করা হয়েছে। সেখানে বাংলাদেশ দলকে বিশ্ব ক্রিকেটের ‘বেয়াদব’ দল উল্লেখ্য করে টাইগারদের বিরুদ্ধে আইসিসি’র কাছে কড়া শাস্তির দাবি তুলেছে ভারতীয় ওই সংবাদ মাধ্যমটি।

অবিস্মরণীয় এক ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে নিদাহাস ট্রফির ফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশ। আজ (১৮ মার্চ) টাইগারদের প্রতিপক্ষ ভারত। আর ফাইনালে মাঠে নামার আগেই ভারতীয়রা মেতে উঠেছে বাংলাদেশ বিদ্বেষের নোংরা খেলায়। বিস্ময়করভাবে সেই দলে যোগ দিয়েছে ভারতীয় মিডিয়াও। এটা অবশ্য নতুন কিছু না। আগেও এরকম কীর্তি করেছে ভারতীয় মিডিয়া। শুক্রবারের ম্যাচের শেষটায় ‘নো বল’ না দেওয়াকে কেন্দ্র করে কিছুটা উত্তেজনাকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছিল। ঘটনা যাই হোক তার জন্য শাস্তি পেতে হয়েছে বিশ্বসেরা অল রাউন্ডার সাকিব আল হাসানসহ আরেক বাংলাদেশি ক্রিকেটার নুরুল হাসান সোহানকে। আর ওই ঘটনায় আনুষ্ঠানিক দুঃখপ্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। কিন্তু শ্রীলঙ্কার বিপক্ষের ওই ঘটনা যেন লঙ্কানদের চেয়ে ভারতের গায়ে লেগেছে বেশি।

ক্রিকেট বিশ্বের অন্যতম মোড়ল ভারত যেন উদীয়মান শক্তি বাংলাদেশকে সহ্যই করতে পারছে না। সেটা বেশ আগে থেকেই তাদের কর্মকাণ্ডে প্রকাশ পেয়েছে। তাই মেতে উঠেছে মিথ্যাচারে। ওই রিপোর্টে ছিল মিথ্যাচারের ভরপুর এ আজগুবি কথাবার্তায় পূর্ণ। নিউজপ্রেজেন্টার জানান, ভারতকে ফাইনালে মোকাবেলা করতে হবে বিশ্বক্রিকেটের ‘বেয়াদব’ দল বাংলাদেশকে। ভারতীয় ওই মিডিয়ার ভাষায় বাংলাদেশ নাকি নো বল নিয়ে ‘নাটক’ করেছে। এবং আম্পায়ারের সাথে বেয়াদবি করেছে। এখানে তারা ভারতের সাবেক ক্রিকেটার সুনীল গাভাস্কারের মন্তব্য কোট করেছে। সেখানে গাভাস্কার বলছেন, ‘আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত ভুল হলেও, তা মানা উচিত ছিল। বাংলাদেশের এ বিরোধিতা করা ঠিক হয়নি।’ অথচ এই ভদ্রলোকই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মেলবোর্নে ১৯৮১ সালে আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে মাঠ ছাড়েন! কি দারুণ বিচার গাভাস্কারের। ভাবখানা এমন, আমরা মোড়ল, যা খুশি তাই করবো!

এদিকে নিউজের ক্লিপে সংবাদ পাঠককে আরো বলতে শোনা যায়, ওইদিন বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা নাকি বেয়াদবি করেছে, গুণ্ডাগিরি করেছে মাঠে। আর শ্রীলঙ্কার খেলোয়াড়রা নাকি টাইগারদের বোঝানোর চেষ্টা করেছে! কিন্তু নিউজ প্রেজেন্টার ভুলেও বললেন না, সোহানকে মাঠে ধাক্কা মেরেছিল কে?

চ্যানেলটি ম্যাচের বেশকিছু ফটো তুলে ধরে বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের দোষী সাব্যস্ত করার চেষ্টা করেছে। সেই সাথে বাংলাদেশের বিখ্যাত ‘নাগিন ডান্স’ নিয়েও সমালোচনায় মেতেছে ভারতীয় এ মিডিয়াটি। এটা নাকি উশৃঙ্খল আচরণ! সে সাথে ড্রেসিংরুমে কাঁচ ভাঙ্গার প্রসঙ্গ এনে বাংলাদেশকে গুণ্ডা ও বেয়াদব দল বলে টাইগারদের বিরুদ্ধে কঠিন ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানিয়েছে সংবাদ মাধ্যমটি।

সবশেষ বাংলাদেশ দল ক্রিকেটের চেয়ে বেয়াদবির জন্য বেশি বিখ্যাত দাবি করে রোহিত শর্মাকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে চ্যানেলটি।