ব্রাজিলের পরের পর্বে যাওয়ার সমীকরণ

‘ই’ গ্রুপে গতকালের ম্যাচে কোস্টারিকার বিপক্ষে ব্রাজিলের জয়ের পর সবই ঠিক ছিল। কিন্তু রাতের ম্যাচে সুইজারল্যান্ড সার্বিয়ার বিপক্ষে জয় পাওয়ায় সব হিসেব নিকেষ উল্টে যায়। কোস্টারিকা দুই ম্যাচের দুটিতে হেরে এক ম্যাচ হাতে রেখেই বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিয়েছে। তবে গ্রুপের বাকি তিন দলেরই আছে দ্বিতীয় রাউন্ডে যাওয়ার সুযোগ।

দুই ম্যাচে এক জয় ও এক ড্র নিয়ে ৪ পয়েন্ট পেয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে রয়েছেন নেইমাররা। দুই ম্যাচে শেষে সমান পয়েন্ট নিয়ে গোল গড়ে পিছিয়ে থেকে পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে আছে সুইজারল্যান্ড। অপরদিকে, দুই ম্যাচে এক জয় ও এক পরাজয়ে তিন পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের তৃতীয় স্থানে রয়েছে সার্বিয়া। যদিও এ গ্রুপ থেকে সার্বিয়াই সর্বপ্রথম কোস্টারিকাকে হারিয়ে পূর্ণ পয়েন্ট অর্জন করেছিল। কিন্তু দ্বিতীয় ম্যাচে গতরাতে তারা সুইসদের কাছে হেরে যায়।

‘ডি’ গ্রুপের মতো ‘ই’ গ্রুপও এখন পড়ে গেছে সমীকরণের গোলক ধাঁধায়। যদিও ‘ডি’ গ্রুপ থেকে ক্রোয়েশিয়া দুই ম্যাচ জিতে সরাসরি সুযোগ পেয়েছে নক আউট পর্বে। সেখানে এখন লড়াই হবে শুধু একটি দলের জন্য। সেই একটি দল হওয়ার জন্য লড়বে আর্জেন্টিনা, নাইজেরিয়া ও আইসল্যান্ড। কিন্তু ‘ই’ গ্রুপে লড়াই হবে দুইটি দলের জন্যই। তাই শেষ ম্যাচটি তিনটি দলের কাছেই গুরুত্বপূর্ণ।

আগামী ২৭ জুন রাত ১২টায় নোভগোরাদ স্টেডিয়ামে সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে খেলবে কোস্টারিকা। একই সময়ে মস্কোর স্পার্তাক স্টেডিয়ামে ব্রাজিলের বিপক্ষে মাঠে নামবে সার্বিয়া। ব্রাজিল যদি তাদের শেষ ম্যাচে সার্বিয়াকে পরাজিত করে, তাহলে কোন প্রকার সমীকরণ ছাড়াই নক আউটে যাবে সেলেসাওরা। তবে সেক্ষেত্রে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবে যাবে নাকি রানার্সআপ হিসেবে যাবে তা নির্ভর করবে সুইজারল্যান্ড-কোস্টারিকা ম্যাচের ওপর। সুইসরা যদি কোস্টারিকাকে পরাজিত করে, তাহলে ব্রাজিল ও সুইসদের পয়েন্ট সাত হবে। সেক্ষেত্রে গোল গড়ে যে এগিয়ে থাকবে, সেই হবে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন।

ব্রাজিল সার্বিয়ার কাছে হেরে গেলে আর সুইসরা কোস্টারিকার বিপক্ষে জয় পেলে সুইসরা সাত পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে যাবে। আর সার্বিয়া ছয় পয়েন্ট নিয়ে হবে গ্রুপের দ্বিতীয়। সেক্ষেত্রে ব্রাজিলকে বিদায় নিতে হবে রাশিয়া বিশ্বকাপ থেকে।

কিন্তু ব্রাজিল-সার্বিয়া ও সুইজারল্যান্ড-কোস্টারিকা ম্যাচ যদি ড্র হয়, তাহলে সুইজারল্যান্ড ও ব্রাজিল উভয় দলই নক আউট নিশ্চিত করবে। তখন উভয় দলের পয়েন্ট হবে পাঁচ। গোল গড়ে যে দল এগিয়ে থাকবে, সেই দল হবে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন।