বৃষ্টি উপেক্ষা করে ধানের শীষের সমর্থনে গণসংযোগ

ধানের শীষের সমর্থনে নগরীজুড়ে গণসংযোগ অব্যাহত রয়েছে। এরই অংশ হিসেবে শনিবার বিএনপি, ছাত্রদল, যুবদলসহ ২০ দলীয় জোটের নেতৃবৃন্দ আরিফুল হক চৌধুরীর পক্ষে ব্যপক প্রচারণা চালান। এসময় সাবেক নেতৃবৃন্দও তাদের সাথে যোগ দেন।

শনিবার ২১ (জুলাই) ধানের শীষের সমর্থনে নগরীর দক্ষিণ সুরমাস্থ খোজারখলা এবং বরইকান্দি এলাকায় আরিফুল হক চৌধুরীর সাথে গণসংযোগে অংশ নেন জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের সাবেক সভাপতি, শিক্ষাপ্রতিমন্ত্রী এহসানুল হক মিলনের সহধর্মিণী।

এছাড়া আরিফুল হক চৌধুরী দুপুরে নগরীর জেলরোড, নয়াসড়ক এবং উপশহরে গণসংযোগে অংশ নেন। এসময় ধানের শীষের সমর্থনে আপামর জনতার উচ্ছাস দেখে নাজমুন নাহার বেবী বলেন- ‘আরিফুল হক চৌধুরী নগরীর সত্যিকার উন্নয়ন করেছেন বলেই আপনারা আজ তাকে এত ভালোবাসেন। বৃষ্টি উপেক্ষা করে মিছিলে মিছিলে আপনাদের অংশগ্রহণ দেখে আমি অভিভূত। আশা করি, আবারো তাকে নির্বাচিত করে নগরীর বৃহত্তর উন্নয়নের সুযোগ তাকে দিবেন। আপনাদের এই অফুরন্ত ভালোবাসা আমাকে এই বিশ্বাস দিয়েছে যে, একটি সুন্দর ও আধুনিক নগরী গড়ে তুলতে আরিফুল হক চৌধুরীর কত প্রয়োজন।’

গণসংযোগে অন্যান্যের মধ্যে অংশ নেন- হবিগঞ্জ পৌরসভার মেয়র জি কে গৌছ, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, খেলাফত মজলিশ সিলেট মহানগর-এর সহ সভাপতি আব্দুল হান্নান তাপাদার, ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সহ সভাপতি মাহবুবুল হক চৌধুরী, করিমুল্লাহ মার্কেটের সাবেক সভাপতি কাওসার আহমদ, ফজলু মিয়া, আব্দুল্লাহ আল মামুন, খলিল উদ্দিন দিলীপ, কয়েস আহমদ, মোর্শেদ আহমদ, হেলাল মিয়া, আব্দুলণ গণি, নজীর আহমদ, তমাল প্রমুখ।

খোজারখলা এলাকায় গণসংযোগকালে উপস্থিত ছিলেন- মহানগর বিএনপির পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক আবুল কালাম, ২৫ নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি মোতাহির আলী মাখন, জয়েন্ট সেক্রেটারী দেলোয়ার হোসেন রানা, সিরাজ মিয়া, নূরুল আহমদ, সরোয়ার আহমদ, আব্দুল লতিফ, হাবিবুর রহমান রুজন, মেহরাব হোসেন রাজু, সোহেল আহমদ, রিয়াদ শাহ, মুন্না শাহ, এম এ হক, বদরুল ইসলাম, রাসেল আহমদ প্রমুখ।

এছাড়া গণসংযোগকালে বিএনপি, ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দলসহ অঙ্গ সংগঠনের সকল পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

গণসংযোগকালে আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, দুইটি বছর মেয়রের দায়িত্ব পালনকালে সাধারণ জনগণ তথা নগরের সার্বিক উন্নয়ন নিয়ে চিন্তা করেছি। নগরীর সার্বিক উন্নয়নে কাজ করেছি। যা আপনাদের কাছে আজ দৃশ্যমান। একটা কথা স্পষ্ট করে বলে দিতে চাই, ষড়যন্ত্র করে কোনো লাভ হবে না। একটি সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন সবার কাম্য। অন্যথায় সিলেটে কোনো অন্যায় সহ্য করা হবে না। মনে রাখতে হবে, সিলেটে অন্যায় করে কেউ পার পায় না।