বিশ্বকাপ মিশনে আজ মুখোমুখি কলম্বিয়া-জাপান

রাশিয়া বিশ্বকাপের আজ ৬ষ্ঠ দিন। এদিন এইচ গ্রুপের প্রথম ম্যাচে নিজেদের বিশ্বকাপ মিশন শুরু করতে যাচ্ছে এশিয়ার পরাশক্তি হিসেবে খ্যাত জাপান ও দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের দল কলম্বিয়া।

মঙ্গলবার (১৯ জুন) বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬টায় রাশিয়ার সারানস্কতে অনুষ্ঠিতব্য ম্যাচটি সরাসরি দেখাবে নাগরিক টেলিভিশন, মাছরাঙা টেলিভিশন, সনি টেন টু, টেন থ্রি ও টেন স্পোর্টস চ্যানেল।

কলম্বিয়ার বিপক্ষে জাপানের রেকর্ড সুখকর নয়। এ পর্যন্ত তাদের বিরুদ্ধে ৩ ম্যাচে অংশ নিয়ে একটিতেও জয়ী হতে পারেনি জাপান। ২০০৩ সালের কনফেডারেশন কাপে প্রথমবারের মতো মুখোমুখি হয়েছিল দুই দল। ম্যাচটি ১-০ গোলে জিতেছিল কলম্বিয়া। ২০০৭ সালে দ্বিতীয়বারের মতো মুখোমুখি হয় তারা। ওই ম্যাচটি ড্র হয়েছিল। আর ২০১৪ সালের বিশ্বকাপে সর্বশেষ দেখায় ৪-১ গোলে ম্যাচটি জিতে নেয় কলম্বিয়া।

কলম্বিয়া গত বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালিস্ট। হামেস রদ্রিগেজের হাত ধরে সেবার কোয়ার্টারে পা রাখে দক্ষিণ আমেরিকার দলটি। ব্রাজিল বিশ্বকাপেই প্রথম অংশ নিয়ে গোল্ডেন বুট জিতেছিলেন রদ্রিগেজ।

আজকের ম্যাচে রদ্রিগেজ খেলবেন কিনা তা নিয়ে সংশয়ে রয়েছে দলটি। কারণ, ২৬ বছর বয়সী এই বায়ার্ন মিউনিখের তারকা ভুগছেন পেশীর ইনজুরিতে।
সোমবার কলম্বিয়ার আর্জেন্টাইন কোচ হোসে পেকারম্যান বলেন, আমরা রদ্রিগেজের চূড়ান্ত রিভিউর জন্য অপেক্ষা করছি। পূর্ণ শক্তির দল নিয়ে আমরা শেষ দিনের অনুশীলন করেছি। কিন্তু শেষ ঘণ্টায় আমরা সিদ্ধান্ত নেব।

তাই চূড়ান্ত লাইনআপ ঘোষণার আগে একটু সময় চান তিনি। তার মতে, নানাভাবেই দলের পরিস্থিতি পরিবর্তন হতে পারে। সে কারণে লাইনআপ ঠিক করতে সতর্ক থাকতে চান তিনি।

গত বিশ্বকাপে ইনজুরির কারণে দর্শক ছিলেন রাদামেল ফ্যালকাও। তাই এবার তিনি চাইবেন নিজের সেরা খেলা উপহার দিয়ে দলের জয়ে মুখ্য অবদান রাখতে।

অন্যদিকে, একেবারেই বিপরীত দিকে অবস্থান করছে জাপান। বিশ্বকাপ শুরুর মাত্র ৭১ দিন আগে কোচ বদল করে জাপান। তাই আজকের ম্যাচে জানা যাবে, কোচ বদলের প্রভাব কতটা পড়েছে দলের ওপর। যদিও দলের সাবেক কোচ ফিলিপ ক্রসিয়ের এই জাপান দলকে নিয়ে কোনও আশাই দেখছেন না। গত বিশ্বকাপে গ্রুপের একটি ম্যাচেও জিততে না পেরে প্রথম রাউন্ড থেকেই বিদায় নিয়েছিল জাপান।

এবারও তার ব্যতিক্রম হবে না বলেই মনে করেন তিনি। ক্রসিয়ের কটাক্ষ করে বলেন, মরিনহো, আর্সেন ওয়েঙ্গার এলেও এই জাপান দলের শেষ ষোলোতে পৌঁছানো অত্যন্ত কঠিন ব্যাপার।