বিশিষ্টজনের ভাবনায় ‘কেমন মেয়র চাই’

আর মাত্র ৪ দিন পর অনুষ্ঠিত হবে সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন। নির্বাচনের মধ্যদিয়ে নগরবাসী আগামী পাঁচ বছরের জন্য পাবে তাদের কাঙ্খিত নগরপিতা। তাই শেষ সময়ে এসে যেমন প্রার্থীরা প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন তেমনই নগরবাসীও চূড়ান্ত হিসেব কষা শুরু করেছেন। গত পাঁচ বছরের চাওয়া পাওয়া এবং আগামীর প্রত্যাশার হিসেব মাথায় রেখেই মেয়র নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন নগরবাসী। এ সময়ে এসে নগরীর বিশিষ্টজনদের কাছ থেকে ‘কেমন মেয়র চাই’ শীর্ষক বিভিন্ন ভাবনার সংকলন করেছে সিলেট ভয়েস।

সিলেট ভয়েসের এ সংকলনে সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) সিলেটের সভাপতি আজিজ আহমদ সেলিম, সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) সিলেটের সভাপতি ফারুক মাহমুদ চৌধুরী, মদন মোহন কলেজের অধ্যক্ষ ড. আবুল ফতেহ ফাত্তাহ, সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল মুক্তাদির লালা, সিলেট চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি খন্দকার শিপার আহমদ, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) সিলেটের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম কীম, সম্মিলিত নাট্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রজত কান্তি গুপ্ত, ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি আশরাফুল কবির প্রমুখ তাদের ভাবনার কথা বলেছেন।

সিলেট ভয়েসকে দেয়া তাদের ভাবনায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী, নাগরিক সমস্যা সম্পর্কে অবগত, দূরদৃষ্টিসম্পন্ন, সংস্কৃতিবান্ধব, সৎ, যোগ্য, ব্যবসাবান্ধব এবং যিনি আধ্যাত্মিক সিলেট নগরীকে যানজটমুক্ত, ফুটপাত দখলমুক্ত করে পরিচ্ছন্ন নগরী গড়তে সঠিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, জলাবদ্ধতা দূরীকরণ, বিশুদ্ধ পানি সমস্যার সমাধান করে একটি উন্নত পর্যটন নগরী গড়তে কাজ করবেন তাঁকেই চান তারা।


আজিজ আহমদ সেলিম, সভাপতি, সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক), সিলেট


‘কেমন মেয়র চাই’ এ প্রসঙ্গে সিলেট ভয়েসের সাথে আলাপচারিতায় সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) সিলেটের সভাপতি আজিজ আহমদ সেলিম বলেন, বর্তমান সিলেট নগরী এখনো পরিকল্পিত নয়, তাই একটি সমৃদ্ধ পরিকল্পিত নগরি গড়তে সঠিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, যানজটমুক্তকরণ, জলাবদ্ধতা দূরীকরণ এবং স্বাধীনতার চেতনায় যিনি বিশ্বাস করেন, স্বাধীনতার চেতনাকে সামনে রেখে যিনি কাজ করতে পারবেন, যিনি নগর এবং নাগরিকের সমস্যা সম্পর্কে ধারণা রাখেন একই সাথে যিনি সৎ, যোগ্য আমি তাকেই মেয়র হিসেবে দেখতে চাই।’


ফারুক মাহমুদ চৌধুরী, সভাপতি, সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) সিলেট


সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) সিলেটের সভাপতি ফারুক মাহমুদ চৌধুরী তাঁর ভাবনার কথা জানান সিলেট ভয়েসকে। তিনি বলেন, ‘মেয়র প্রার্থীরা সাধারণত নির্বাচনের পূর্বে জনগণকে যে প্রতিশ্রুতি দেন নির্বাচনের পর তার প্রতিফলন খুব কম হয়। তাই আমি এমন একজন মেয়র চাই যিনি সৎ, যোগ্য, জনকল্যাণকর এবং যিনি জনগণকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি রক্ষা করবেন।’


আবুল ফতেহ ফাত্তাহ, অধ্যক্ষ, মদন মোহন কলেজ, সিলেট


মদন মোহন কলেজের অধ্যক্ষ আবুল ফতেহ ফাত্তাহ সিলেট ভয়েসকে তাঁর আগামীর মেয়র চাওয়া প্রসঙ্গে বলেন, ‘নির্বাচনের মাধ্যমে একজন নাগরিক হিসেবে ওই মেয়রকেই চাই, যিনি জন আকাঙ্খা পূরণ করবেন, নগরবাসীর যে চাহিদা, বিশেষ করে নাগরিকদের সুখ, শান্তি সমৃদ্ধি এবং নিরাপত্তা নিশ্চিত করবেন, নগর উন্নয়ন সাধন করবেন, নাগরিক জীবনের যে সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডল আছে এ বিষয়টিকে তিনি নিশ্চিত করবেন। এছাড়াও যেহেতু সম্প্রীতির শহর এটা সুতরাং নাগরিকরা যাতে সম্প্রীতির মাধ্যমে তাদের আত্ম উন্নয়নে, আত্ম বিকাশে বাক স্বাধীনতা রক্ষা করে চলাফেরা করতে পারে এজন্য নগর পিতাকে ওই বিষয়গুলো নিশ্চিত করতে হবে। এসব কার্যক্রমগুলো যিনি নিশ্চিত করতে পারবেন আমি এরকম একজন নগর পিতা চাই।’


অ্যাডভোকেট আব্দুল মুক্তাদির লালা, সভাপতি, সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতি


সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি সিলেট ভয়েসের সাথে আলাপকালে জানান, ‘নগরীর বেশির ভাগ সড়ক এখনো অনেক নিম্নমানের এবং ছোট, তাই সকল সড়কের মান উন্নয়ন এবং বড় করে যানজট নিরসন, ফুটপাত দখলমুক্ত করাসহ হকারদের স্থায়ী একটি সমাধান এবং যে সব ক্ষেত্রে নাগরিক সমস্যা বিরাজমান এসব ক্ষেত্র নির্ণয় করে তার সঠিক সমাধানের মাধ্যমে যে মেয়র সিলেট নগরীকে একটি উন্নত নগরী হিসেবে গড়তে পারবেন তাকেই আমি চাই। সর্বোপরি যিনি সিলেটের উন্নয়নের জন্য কাজ করবেন তাকেই আমরা চাই।’


খন্দকার শিপার আহমদ, সভাপতি, সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি


সিলেট চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি খন্দকার শিপার আহমদ ব্যবসা বান্ধব মেয়র চান জানিয়ে সিলেট ভয়েসকে বলেন, ‘ ব্যবসায়ীদের সুবিধা অসুবিধার বিষয় মাথার রেখে যে মেয়র কাজ করবেন এবং ফুটপাত দখলমুক্ত করে যিনি পরিচ্ছন্ন পর্যটন নগরী গড়তে কাজ করবেন আমরা তাকেই চাই। এক সময় হকাররা শুধু ফুটপাত দখল করে রেখেছিলো কিন্তু এখন সড়কও দখল হচ্ছে। সুতরাং হকারদের স্থায়ী সমাধান করা হবে কি না তা নগর কর্তাই বিবেচনা করবেন কিন্তু যে কোন মূল্যে আমরা ফুটপাত দখল মুক্ত পরিচ্ছন্ন নগরী গড়ার লক্ষ্যে যে মেয়র কাজ করবেন তাকেই চাই।’


আব্দুল করিম কীম, সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন, সিলেট


বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন সিলেটের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম কীম সিলেট ভয়েসকে বলেন, ‘আগামী সপ্তাহে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন। এ নির্বাচনের মাধ্যমে কাউন্সিলর এবং মেয়র নির্বাচন করা হবে। তবে যিনি মেয়র হন তিনি যেহেতু নগর কর্তা তাই জনগণের প্রধান আকর্ষণ থাকে মেয়রের দিকে। এ অবস্থাতে প্রথমে বুঝতে হবে মেয়রের কাজ কি? আমি মনে করি একজন মেয়রের একমাত্র কাজই হচ্ছে নাগরিকদের সুবিধা অসুবিধা বুঝা, যে অসুবিধা আছে সেগুলো দূর করে নাগরিকদের উচ্চমানের সুবিধা প্রদান করা। তবে নাগরিক অসুবিধা দূর করতে হলে নাগরিক সমস্যা সম্পর্কে তাঁর ধারণা থাকতে হবে। সেগুলা দূর করার মতো আন্তরিকতা থাকতে হবে, ভোটারদের প্রতি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হতে হবে এবং মেয়রকে দূরদৃষ্টি সম্পন্ন হতে হবে। সেই সাথে নাগরিক সমস্যা সমাধানে তাঁর ইচ্ছা থাকতে হবে। তাহলে সে ইচ্ছার সামান্য প্রতিফলন করলেও নাগরিকরা অনেক সুবিধাভোগী হবে। কিন্তু মেয়রের যদি নাগরিক সমস্যা সম্পর্কে কোন ধারণাই না থাকে সে ক্ষেত্রে একজন মেয়র চাইলেও তাঁর নাগরিকদের কোন সুবিধা দেওয়া দূরের কথা অসুবিধাই দূর করতে পারবে না। সে হিসেবে আমি এমন মেয়র চাই যিনি নগরের এবং নাগরিক অসুবিধার জ্ঞানসম্পন্ন, উদ্ভাবনী ক্ষমতা সম্পন্ন এবং নাগরিক বান্ধব মেয়রই আমি চাই।’


রজত কান্তি গুপ্ত, সাধারণ সম্পাদক, সম্মিলিত নাট্য পরিষদ, সিলেট


সম্মিলিত নাট্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রজত কান্তি গুপ্ত সিলেট ভয়েসকে বলেন তিনি একজন সংস্কৃতিবান্ধব এবং মুক্তিযুদ্ধের আদর্শে বিশ্বাসী মেয়র চান। তিনি বলেন, ‘আমরা মুক্তিযুদ্ধের আদর্শে বিশ্বাসী। তাই আগামীর নির্বাচনের মাধ্যমে আমরা এমন একজন মেয়র চাই যিনি মুক্তিযুদ্ধের আদর্শের বাস্তবায়নের জন্য পর্যটন নগরী, আধ্যাত্মিক নগরী সিলেটে শিশুদের চিত্তবিনোদন থেকে শুরু করে আমাদের এ নগরীর তৃণমূল পর্যায় যেসকল সন্তানরা ক্রীড়া ক্ষেত্রে আগ্রহী তাদের মেধার বিকাশে ভূমিকা রাখবেন এছাড়াও আমাদের সংস্কৃতি ক্ষেত্রে এখনো অনেক সমস্যা বিরাজমান। সুতরাং এসব সমস্যা সমাধান করে যিনি আধ্যাত্মিক এ নগরীকে উন্নত ভাবে সাজিয়ে উন্নয়নের মহাসড়কে নিতে কাজ করতে পারবেন আমরা তাকেই চাই।’


আশরাফুল কবীর, সভাপতি, ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন (ইমজা), সিলেট


সিলেট ভয়েসকে দেয়া তাঁর বক্তব্যে ইমজা’র সভাপতি আশরাফুল কবীর বলেন, ‘যিনি শুধু কথায় নয় একই সাথে কাজেও তার প্রমাণ দিবেন। তাই আমি এমন একজন মেয়র চাই যিনি সৎ এবং যোগ্য একই সাথে যিনি সিলেট নগরীকে শান্তির একটি নগরী গড়তে পারবেন।’