বিকাশ-রকেটের বিরুদ্ধে দুদকের তদন্ত শুরু

মুদ্রাপাচারসহ আর্থিক অনিয়মের অভিযোগে মোবাইলে আর্থিক সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান বিকাশ ও রকেটের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। একই সঙ্গে তিন কুরিয়ার সার্ভিস প্রতিষ্ঠান সুন্দরবন, এসএ পরিবহন ও কন্টিনেন্টালের নথি তলব করা হয়েছে। এই পাঁচ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়ার পর তাদের প্রাতিষ্ঠানিক লেনদেনসহ সার্বিক তথ্য-উপাত্ত চেয়ে বৃহস্পতিবার চিঠি দিয়েছে দুদক।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য। বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত পৃথক চিঠি প্রতিষ্ঠান পাঁচটির প্রধান কার্যালয় বরাবর পাঠানো হয়েছে।

অভিযোগের তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপ-পরিচালক মো. মাহমুদ হাসানের সই করা নোটিসে বিকাশ লিমিটেডের রেগুলেটরি অ্যান্ড কর্পোরেট অ্যাফেয়ার্স ডিপার্টমেন্টের মহাব্যবস্থাপক হুমায়ুন কবীরকে আগামী ১২ এপ্রিল ও ডাচ বাংলা ব্যাংক লিমিটেডের এসএভিপি অ্যান্ড হেড অব এফআইডি সাইফুল আলম মো. কবির ১৫ এপ্রিল সকাল ১০টায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে হাজির হতে বলা হয়েছে।

নোটিসে এই দুই কোম্পানির বিরুদ্ধে ‘নীতিমালা লঙ্ঘন করে ঘুষ লেনদেন, মুদ্রাপাচার, ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসা এবং সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে অর্থ লেনদেনের’ অভিযোগের কথা বলা হয়েছে। একই ধরনের অভিযোগে এসএ পরিবহন, সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস ও কন্টিনেন্টাল কুরিয়ার সার্ভিসকে সংশ্লিষ্ট নথিপত্র দুদকে পাঠাতে বলা হয়েছে।