বর্তমান সরকার ব্যবসা-বান্ধব সরকার : এম এ মান্নান

বর্তমান সরকার ব্যবসা বান্ধব সরকার আখ্যা দিয়ে ব্যবসায়ীদের সকল প্রকার সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ব্যবসায়ীদের সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধিতে সব সময় সহানুভূতিশীল রয়েছেন। আপনাদের ব্যবসার প্রয়োজনে যা কিছু প্রয়োজন বর্তমান সরকার তা বাস্তবায়নে বদ্ধপরিকর।

রোববার (২০ মে) সন্ধ্যায় সিলেট চেম্বারের ইফতার পূর্ব আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি সিলেট চেম্বারের বিশাল ইফতার মাহফিলের আয়োজনের প্রশংসা করে বলেন, এর মাধ্যমে ব্যবসায়ীদের মধ্যে যে ঐক্য ও সম্পৃতির সৃষ্টি হলো তার মাধ্যমে দেশের অগ্রগতিতে আপনারা গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে সক্ষম হবেন বলে আমি বিশ্বাস করি। প্রতিমন্ত্রী ইফতার মাহফিলের জন্য চেম্বার নেতৃবৃন্দকে ধন্যবাদ জানান এবং যেকোন প্রয়োজনে তার সহযোগিতা প্রদানের আশ্বাস দেন। ইফতার মাহফিলে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

নগরীর একটি অভিজাত কনভেনশন সেন্টারে আয়োজিত ইফতার ও দোয়া মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন সিলেট চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি জনাব খন্দকার সিপার আহমদ। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, পবিত্র রমজান মাস সিয়াম সাধনার মাধ্যমে আল্লাহর নৈকট্য লাভের মাস। পবিত্র রমজান মাস সিয়াম সাধনার মাধ্যমে আল্লাহর নৈকট্য লাভের মাস। এ মাসে ব্যবসায়ীদের কিছু অতিরিক্ত দায়িত্ব রয়েছে। তা হলো রমজানের পবিত্রতা রক্ষা করে সততার সাথে ব্যবসা-বাণিজ্য পরিচালনা করা। সেই সাথে প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দায়িত্ব ব্যবসায়ীদের জান-মালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা। তিনি পবিত্র রমজান মাস ও আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে শহর ও শহরের বাইরে অতিরিক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুলিশ প্রশাসন-কে অনুরোধ জানান। তিনি ইফতার মাহফিল আয়োজনে সার্বিক সহযোগিতার জন্য অভ্যর্থনা ও আপ্যায়ন সাব কমিটির সদস্যবৃন্দকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। ইফতার মাহফিলে মোনাজাত পরিচালনা করেন ইসলামী ফাউন্ডেশনের সহকারী পরিচালক জনাব শাহ্ মোঃ নজরুল ইসলাম।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সিলেট চেম্বারের সহ সভাপতি মোঃ এমদাদ হোসেন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব লুৎফুর রহমান, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ শফিকুর রহমান, সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, এসএমপি’র কমিশনার গোলাম কিবরিয়া, উপ-পুলিশ কমিশনার আজবাহার আলী শেখ, ডিজিএফআই এর কর্নেল জিএস এ. এস. এম. বাহাউদ্দিন, বিজিবি’র সেক্টর কমান্ডার কর্নেল মোঃ নাসির উদ্দিন, কর কমিশনার আবু হান্নান দেলোয়ার হোসেন, কাস্টমস এক্সাইজ এন্ড ভ্যাট এর অতিরিক্ত কমিশনার মোহাম্মদ নিয়াজুর রহমান, মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নাসির উদ্দিন খান, সাবেক সভাপতি আ. ন. ম. শফিকুল হক, সিলেট সরকারী মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর হায়াতুল ইসলাম আকঞ্জি, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অবঃ) জুবায়ের সিদ্দিকী, স্টেশন ক্লাবের সভাপতি এডভোকেট এমাদউল্লাহ শহিদুল ইসলাম, এনআরবি ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও বিশিষ্ট শিল্পপতি মাহতাবুর রহমান, এনএসআই’র যুগ্ম পরিচালক সরোয়ার হোসেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক শাহ্ আলম, জিএম সাজ্জাদ হোসেন, সিলেট সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর রেজাউল হাসান লোদী, কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ, কাউন্সিলর আব্দুল মুহিত জাবেদ, কাউন্সিলর দিনার খান হাসু, সোনালী ব্যাংকের জিএম গোপীনাথ দাস, জনতা ব্যাংকের জিএম মোঃ রিয়াজুল ইসলাম, রূপালী ব্যাংকের জিএম নোমান মিয়া, সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের শামীম, সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, বিএসটিআই এর উপ-পরিচালক প্রকৌশলী শফিউল্লাহ্ খান, সিলেট চেম্বারের সাবেক সভাপতি ফারুক আহমদ মিছবাহ, বিসিক এর ডিজিএম মুহসীন কবির খান, শাবিপ্রবি’র সহযোগী অধ্যাপক ড. ফজলে এলাহী মোহাম্মদ ফয়সল, জেলা বারের সভাপতি এডভোকেট মোহাম্মদ লালা, সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মোঃ আব্দুল কুদ্দুছ, ইপিবি’র গবেষণা কর্মকর্তা কাজী মোঃ মহিউদ্দিন, বিমানবন্দর থানার ও.সি. মোশারফ হোসেন, শাহপরান থানার ও.সি. আকতার হোসেন, লিডিং ইউনিভার্সিটির সহকারী অধ্যাপক ড. মোঃ রাশেদুল আজীম, সিলেট প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকরামুল কবির, সাধারণ সম্পাদক ইকবাল মাহমুদ, জেলা প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত সভাপতি তাপস দাস পুরকায়স্থ, সাধারণ সম্পাদক শাহ দিদার আলম নোবেল, সাংবাদিক আল-আজাদ, আহমেদ নূর, সিলেটের ডাকের বার্তা সম্পাদক সমরেন্দ্র বিশ্বাস, দৈনিক জালালাবাদ’র নির্বাহী সম্পাদক আব্দুল কাদের তাপাদার, আব্দুল বাতিন ফয়সল, ওকাস সভাপতি খালেদ আহমদ, সিলেট চেম্বারের সিনিয়র সহ সভাপতি মাসুদ আহমদ চৌধুরী, পরিচালক মোঃ হিজকিল গুলজার, জিয়াউল হক, পরিচালক ও অভ্যর্থনা, আপ্যায়ন সাব কমিটির আহবায়ক মোঃ সাহিদুর রহমানসহ সিলেট চেম্বারের অভ্যর্থনা ও আপ্যায়ন সাব কমিটির সদস্যবৃন্দ, সিলেট চেম্বারের সদস্যবৃন্দ, বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, সরকারী-বেসরকারী উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাবৃন্দ, প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক্স মিডিয়ার প্রতিনিধিবৃন্দ।