ফাহিমার হ্যাটট্রিকে সালমাদের আরেকটি বিজয়

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাছাইয়ে নেদারল্যান্ডস আর আয়ারল্যান্ডকে হারানোর পর এবার আরব আমিরাতকে ৮ উইকেটে হারিয়েছে সালমারা। সেই সাথে শুধু মেয়েদের টি-টোয়েন্টিতেই নয়, ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ততম সংস্করণে বাংলাদেশের হয়ে প্রথম হ্যাটট্রিক করেছেন লেগ স্পিনার ফাহিমা খাতুন।

বাংলাদেশের মেয়েদের ক্রিকেটে এর চেয়ে ভালো সময় আর আসেনি, এটা এখন বলাই যায়। সালমারা এখন খেলতে নামেন আর জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন—এটাই গত এশিয়া কাপ থেকে যেন নিয়মিত দৃশ্য হয়ে গেছে! আজ আরব আমিরাতকে ৩৯ রানে গুঁড়িয়ে বাংলাদেশ লক্ষ্যটা পেরিয়েছে ৭৯ বল ও ৮ উইকেট হাতে রেখে।

রোববার নেদারল্যান্ডসকে ৪২ রানে অলআউট করেছিল সালমার দল, যেটি ছিল মেয়েদের টি-টোয়েন্টিতে চতুর্থ সর্বনিম্ন স্কোর। আজ সেটি পেছনে ফেলে দিয়েছে আমিরাত! অথচ আমিরাতের স্কোর ১০.১ ওভারেও ছিল ১ উইকেটে ২৮। পরের ১১ রানে হারিয়েছে ৯ উইকেট! এই ৯ উইকেটের ছয়টিই পড়েছে ১৩ ও ১৪তম ওভারে।

আমিরাতের ব্যাটিং অর্ডার ধসিয়ে দিয়েছেন আসলে ফাহিমা। ১৩তম ওভারে রেকর্ডের খাতায় নাম তুলে ফেলেছেন এ লেগ স্পিনার। মেয়েদের টি-টোয়েন্টিতে অষ্টম ও বাংলাদেশের প্রথম বোলার হিসেবে করেছেন হ্যাটট্রিক। শুধু মেয়েদের টি-টোয়েন্টিতেই নয়, বাংলাদেশের প্রথম বোলার হিসেবে ২০ ওভারের ক্রিকেটে প্রথম হ্যাটট্রিক করেছেন তিনি। ৪ ওভারে ৮ রান দিয়ে ফাহিমা পেয়েছেন ৪ উইকেট।

ফাহিমার ওভারে ওই ধাক্কার পর আমিরাত ঘুরে দাঁড়াবে কী, রুমানা আহমেদের করা ১৪তম ওভারে চলে উইকেট-বৃষ্টি! এই ওভারেও পড়ে ৩ উইকেট। আমিরাতের অলআউট হওয়া যেন সময়ের ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। অনেক কষ্টেসৃষ্টে তারা ৩৯ রান যোগ করতে পারে স্কোরবোর্ডে। সহজ লক্ষ্যটা অনায়াসে পেরিয়ে গেছেন বাংলাদেশের মেয়েরা। ৪০ রান করতে বাংলাদেশ খেলেছে ৬.৫ ওভার। নিগার সুলতানা অপরাজিত ছিলেন ২১ রানে।

আরব আমিরাতের বিপক্ষে এই জয়ে বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় সেমিফাইনালে ‘বি’ গ্রুপের রানার্সআপ স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশের মেয়েরা। আট দলের বাছাইপর্বের দুই ফাইনালিস্ট আগামী নভেম্বরে খেলবে ওয়েস্ট ইন্ডিজে অনুষ্ঠেয় মূল প্রতিযোগিতায়।