নৌকার মনোনয়ন পাননি চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি

0
0

রাজনীতিতে আসা নিয়ে কয়েকদিন থেকে ব্যাপক আলোচনায় আসলেও অবশেষে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলেন না চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ (গোমস্তাপুর, নাচোল ও ভোলাহাট) আসনের উপনির্বাচনে দলের মনোনয়ন কিনলেও দল থেকে তাকে মনোনয়ন দেওয়া হয়নি। এই আসনে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মুহা. জিয়াউর রহমান।

এদিকে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর নাম ঘোষণার পর নিজের ফেসবুক আইডি থেকে লাইভে এসে নৌকার পক্ষে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন মাহিয়া মাহি। এছাড়াও মুহা. জিয়াউর রহমানকে অভিনন্দন জানান তিনি।

মাহিয়া মাহি বলেন, ‘আগামী ১ ফেব্রুয়ারি চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে মুহা. জিয়াউর রহমানকে। তার জন্য অনেক অনেক শুভ কামনা রইল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দলের জন্য যে সিদ্ধান্ত নেবেন, তা দলের জন্য সর্বোচ্চ ভালোর জন্য নেবেন। এই বিশ্বাস আমার আগে থেকেই ছিল এবং এখনো আছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী যেই ব্যক্তিকে পছন্দ করেছেন, তিনিই চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের জন্য বেস্ট হবেন। তার পক্ষে ও নৌকার পক্ষে আমি মাঠে কাজ করব। আগামী ১ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে নৌকা প্রতীক ৫০ হাজার ভোটে জয়লাভ করবে এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনে আবারও নৌকার বিজয় হবে। চাঁপাইনবাবগঞ্জের সকল জনগণকে বলব, নৌকার পক্ষে কাজ করার জন্য।’

মাহিয়া মাহি বলেন, ‘যারা যারা দলের মনোনয়ন কিনেছিলেন, তাদেরকে বলব- চলেন আমরা সবাই একসাথে নৌকার পক্ষে কাজ করি, নৌকাকে জয়যুক্ত করি এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসন উপহার দেই।’

হঠাৎ করে গত সোমবার (২৬ ডিসেম্বর) থেকে বিএনপির এমপি আমিনুল ইসলামের পদত্যাগের পর শূন্য হওয়া চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের উপনির্বাচনে গণসংযোগ ও পথসভা শুরু করেন মাহিয়া মাহি। এ সময় নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশা ও ভোট চেয়ে বক্তব্য দেন তিনি। পর দিন মঙ্গলবার (২৭ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় গোমস্তাপুর উপজেলা ও রহনপুর পৌরসভার বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগ করেন মাহিয়া মাহি। এ সময় মাহির সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন তার স্বামী আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণবিষয়ক উপ কমিটির সদস্য রাকিব সরকার। গণসংযোগে তিনি নৌকার পক্ষে ভোট প্রার্থনা করেন।

উল্লেখ্য, গত ১০ ডিসেম্বর রাজধানীর গোলাপবাগ মাঠে বিভাগীয় গণসমাবেশ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছিলেন বিএনপির সাত সংসদ সদস্য। এতে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ ( নাচোল ,গোমস্তাপুর ও ভোলাহাট) আসন শূন্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। গত ১১ ডিসেম্বর জাতীয় সংসদের স্পিকারের নিকট বিএনপি দলীয় সাতজন সংসদ সদস্য পদত্যাগপত্র জমা দেন। পরের দিন জাতীয় সংসদ সচিবালয় থেকে তাদের আসন শূন্য ঘোষণা করা হয়। ফলে ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করার বাধ্যবাধকতা থেকেই নির্বাচন কমিশন দেশের ছয়টি আসনে উপনির্বাচন ঘোষণা করে ১ ফেব্রুয়ারি।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনে বিএনপি মনোনীত সংসদ সদস্য আমিনুল ইসলাম ধানের শীষ প্রতীকে ২০১৮ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ১ লাখ ৭৫ হাজার ৪৬৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছিলেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী জিয়াউর রহমান নৌকা প্রতীকে এক লাখ ৩৯ হাজার ৯৫২ ভোট পেয়ে হেরে যান। এবার আমিনুল ইসলাম পদত্যাগ করায় উপনির্বাচনে প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন মাহিয়া মাহি।