দরিদ্র পরিবারকে ঘর তৈরি করে দিলেন থানার এএসআই

এএসআই শামসুল আরেফিন জিহাদ ভূইয়া (বামে) ও তার দানকৃত বসতঘর।

কানাইঘাট উপজেলার লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপির সিঙ্গারীপাড় গ্রামের মৃত ছইফ উল্লাহর পুত্র দরিদ্র ভূমিহীন ফয়জুল হক (৬৩) কে বসত বাড়ীর জায়গার ব্যবস্থাসহ নিজ উদ্যোগে টিনসেড ঘর নির্মাণ করে দিয়েছেন এএসআই মো. শামসুল আরেফিন জিহাদ ভূইয়া।

ফয়জুল হকের সাথে আলাপকালে তিনি প্রতিবেদককে জানান- দীর্ঘদিন পূর্বে অভাবের তাড়নায় বসত বাড়ী বিক্রি করে দিয়েছেন। এরপর থেকে হাজী মুহিবুর রহমানের বাগানের টিলায় একটি বাঁশ বেতের কূড়ে ঘরে ৩ সন্তান ও স্ত্রী সহ বসবাস করে আসছিলেন। অতি দরিদ্রতার মাঝে দুই থেকে আড়াইশ টাকা মজুরিতে দিন মজুরের কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছেন। তার পক্ষে নিজস্ব ঘরবাড়ি তৈরি করা ছিল দুঃস্বপ্ন।

একদিকে ছেলে মেয়ের লেখাপড়া খরছের চাপ ও অন্যদিকে পরিবারের ভরণ পোষণ চালানো হয়ে পড়েছিল কষ্টকর। এমতাবস্থায় কিছুদিন পূর্বে টিলার মালিক হাজী মুহিবুর রহমান তার বাগান বিক্রি করে দিলে বর্তমান মালিক আলী আহমদ তাকে মাথা গোঁজার একমাত্র কুড়ে ঘরটি ছেড়ে পরিবার নিয়ে চলে যাওয়ার নির্দেশ দেন। কিন্তু তিনি নিরুপায় হয়ে মালিকের কাছে থাকার জন্য অনেক মিনতি করলেও মালিক তাকে থাকতে দেয়নি। অবশেষে মালিক থানায় অভিযোগ দায়ের করেন তাঁকে স্বপরিবারে উচ্ছেদ করার জন্য।

এ অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা কানাইঘাট থানার এএসআই শামসুল আরেফিন ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসলে আমার বিস্তারিত বিষয় উনাকে অবগত করি। তখন আমার সামনে ৩ ছেলে মেয়ের ভবিষ্যত নিয়ে খুবই চিন্তিত ছিলাম, মনে হচ্ছিল যেন আমি অন্ধকারে ডুবে যাচ্ছি। তিনি আমার জীবনের করুণ কাহিনী শুনে আমার বসত বাড়ী তৈরি করার জন্য আহমদ আলীর কাছ থেকে বুঝিয়ে ৫ শতক জমি ব্যবস্থা করেন এবং নিজ অর্থায়নে একটি টিনসেড দুই কক্ষ বিশিষ্ট বসত ঘর ও উন্নতমানের স্যানিটেশন ল্যাট্রিন তৈরি করে দেন।

এতে আমার ও পরিবার মাথা গোঁজার ঠাই পেয়ে অনেক আনন্দিত হয়েছি। এছাড়াও এএসআই শামসুল আরেফিন নববর্ষ উপলক্ষ্যে নতুন পোষাক ও মিষ্টি নিয়ে আসেন। তার এ মহতী উদ্যোগে দরিদ্র ফয়জুল হক এএসআই শামসুল আরেফিনের জন্য দীর্ঘায়ু ও মঙ্গল কামনা করেন।

এ ব্যাপারে কানাইঘাট থানার এএসআই মো. শামসুল আরেফিন জিহাদ ভূইয়া জানান, একটি উচ্ছেদ অভিযোগের তদন্তে গিয়ে অসহায় পরিবারের অবস্থা দেখে আমার মনটি দুর্বল হয়ে পড়ে। “মানুষ মানুষের জন্য” এই কথাটির বাস্তব রূপ দেয়ার জন্য আমি এ অসহায় দরিদ্র পরিবারের বসতি স্থাপনের জন্য একটি টিনসেডের ঘর তৈরি করে দিয়েছি।