তিতের ওপরই ভরসা রাখলো ব্রাজিল

বিশ্বকাপে বড় দলের পরাজয় মানেই কোচ ছাটাই। বিশ্বকাপে ব্যর্থতার পর আর্জেন্টিনা তাদের কোচকে বিদায় জানিয়েছে। কিন্তু সে পথে পা দেয়নি ব্রাজিল ফুটবল ফেডারেশন।

বুধবার (২৫ জুলাই) রাতে তিতের সঙ্গে নতুন করে চুক্তি করেছে ব্রাজিল। ২০২২ সালের কাতার বিশ্বকাপ পর্যন্ত তিনিই থাকছেন ৫ বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের কোচ।

তিতের সঙ্গে নতুন করে চার বছরের চুক্তি সম্পর্কে সিবিএফের নির্বাহী পরিচালক রোজারিও কাবোকলো বলেন, আমরা বিশ্বাস করি নিবিড় পরিকল্পনা ও তা সম্পাদনের মাধ্যমে ব্রাজিল ফুটবল সাফল্য পাবে।

ছন্নছাড়া এক দলকে সংগঠিত করার দায়িত্ব নিয়েছিলেন তিতে। তিতের নেতৃত্বে রাশিয়ায় হট ফেবারিট হিসেবেই পা রাখে ব্রাজিল। কিন্তু কোয়ার্টারে বেলজিয়ামের কাছে পরাজয়ে স্বপ্নভঙ্গ হয় সাম্বার দেশের। তারপর অনেকেই মনে করছিল তিতে চাকরি হারাচ্ছেন। কিন্তু ব্রাজিল ফুটবল কনফেডারেশন জানিয়ে দিল, আরও চার বছর দলটির কোচের দায়িত্বে থাকছেন ৫৭ বছর বয়সী এই কোচ।

সবশেষ ২০১৬ সালে নিজেদের কোচ পরিবর্তন করে ব্রাজিল। ২০১৪ সালে সেমিফাইনালে জার্মানির কাছে ৭-১ গোলে বিধস্ত হয় সেলেসাওরা। তৃতীয় স্থানের ম্যাচে নেদারল্যান্ডের কাছেও ৩-০ গোলে পরাজিত হয় নেইমারবিহীন ব্রাজিল।

এমন পরিস্থিতিতে ২০১৬ সালে দুঙ্গার কাছ থেকে নেইমারদের দায়িত্ব বুঝে নেন তিতে। দায়িত্ব পেয়ে মিশন শুরু হয় মূলত ২০১৬ সালের জুনে। তার অধীনে বদলে যেতে থাকে ব্রাজিল দল। ফিরে পেতে থাকে নিজের স্বভাবসুলভ ছন্দ। ফেরে জয়ের ধারায়ও। বাছাইপর্ব পেরিয়ে সবার আগে রাশিয়া বিশ্বকাপ নিশ্চিত করে ব্রাজিল।

৫৭ বছর বয়সী তিতের অধীনে ২৬টি ম্যাচ খেলে ব্রাজিলের জয় ২০টিতে, হার দুটি আর ড্র বাকি চার ম্যাচ।

এদিকে, আরও চার বছর ব্রাজিলের ডাগআউটে থাকার সুযোগ পেয়ে উচ্ছ্বসিত তিতে। তিনি বলেন, আমি অবশ্যই খুশি। রাশিয়াতে প্রত্যাশিত ফল পাইনি। কিন্তু এবার হাতে অনেক সময় থাকছে। দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা নিয়েই এগিয়ে যাবো। এই চ্যালেঞ্জে সফল হতেই হবে।