তাহিরপুরে বসতঘরে ঢুকে ঘুমন্ত স্বামী-স্ত্রীকে কোপালো যুবক

0
0

রাতের বেলা বসতঘরে ঢুকে ঘুমন্ত স্বামী-স্ত্রীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করেছে এক যুবক। গুরুতর আহত ওই স্বামী-স্ত্রীকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের কামালপুর গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত যুবক একই গ্রামের ফরহাদ মিয়ার ছেলে।

আহতরা হলেন, সলু মিয়ার ছেলে নাছির মিয়া (৩০) ও তার স্ত্রী আলপিনা বেগম(২৫)। তাদের ৬ বছরের এক মেয়ে, ৩ বছরের এক ছেলে ও দেড় বছরের এক শিশু কন্যা রয়েছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য সাজিনুর মিয়া ও আহত নাছির মিয়ার ভাই জানান, গত তিন থেকে চার দিন আগে আতাবুরের বসতঘরের সামনে থাকা টিউবওয়েল থেকে পানি নিতে যায় ভুক্তভোগী নাছির মিয়ার স্ত্রী আলপিনা বেগম। সেদিন আতাবুর আলপিনাকে কটু কথা বলে গালমন্দ করে। এ নিয়ে গ্রামে সালিশ হয়। কিন্তু সালিশের সিদ্ধান্ত মানেননি আতাবুরের বাবা ফরহাদ মিয়া। একপর্যায়ে শনিবার রাত তিনটার দিকে ঘরে ঢুকে ঘুমন্ত স্বামী ও স্ত্রীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করে আতাবুর। ঘটনার পর থেকে সে পলাতক রয়েছে।

শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলী হায়দার বলেন, ব্যক্তিগত কাজে আমি এখন ঢাকায় আছি। নাছির মিয়া ও আতাবুরের বিষটি নিয়ে গ্রাম্য আদালতে বিচারের জন্য একটি দরখাস্ত জমা দেয়ার বিষয়টি আহত নাছির মিয়ার মা আমাকে ফোনে জানিয়েছিলেন।

তাহিরপুর থানার ওসি সৈয়দ ইফতেখার হোসেন জানিয়েছেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ঘটনার তদন্ত চলছে। এর বেশি এখনই কিছু বলা যাচ্ছে না।