ছাত্রদলের ধাওয়া খেলেন মুক্তাদির, লাঞ্ছিত কামাল

বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা খন্দকার মুক্তাদিরকে ধাওয়া দিয়েছে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রদল। ধাওয়া খেয়ে খন্দকার মুক্তাদির নিরাপদে চলে গেলেও তার সাথে থাকা সাবেক ছাত্রদল নেতা আ.ফ.ম কামালকে লাঞ্ছিত করেছে ছাত্রদলের পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা।

এসময় ছাত্রদল নেতাকর্মীরা রোজভিউ হোটেলেও ভাংচুর চালায়। এতে অনুষ্ঠিতব্য সিলেট বিএনপির নির্ধারিত কর্মসূচি পণ্ড হয়ে যায়।

এদিকে হামলার ঘটনায় রোজভিউ হোটেলে অনুষ্ঠিতব্য পুর্বনির্ধারিত কর্মসূচি বাতিল করেছে সিলেট বিএনপি। ভেন্যু পরিবর্তন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন খন্দকার মুক্তাদির। পরবর্তীতে বিএনপির মেয়র পদপার্থী আরিফুল হক চৌধুরীর বাসভবনে সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

জানা গেছে, আসন্ন সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরীর সমর্থনে প্রচারণা চালাতে ও নির্বাচনের সার্বিক দিক পর্যবেক্ষণ করতেই সিলেটে এসেছেন বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী। তার আগমনে সোমবার (০৯ জুলাই) দুপুরে রোজ ভিউ হোটেলে ঘরোয়া সভার আয়োজন করে সিলেট বিএনপি।

বেলা সাড়ে তিনটার দিকে ওই সভায় যোগ দিতে আসেন খন্দকার মুক্তাদির। এ সময় তাকে ধাওয়া দেয় ছাত্রদলের পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা। ধাওয়া খেয়ে মুক্তাদির নিরাপদে চলে গেলেও ছাত্রদলের পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা তাদের ক্ষোভ ঝাড়ে আ.ফ.ম কামালের উপর। এসময় সাবেক ছাত্রদল নেতা ভিপি মাহবুবকেও লাঞ্ছিত করে ছাত্রদল কর্মীরা।

হামলার ঘটনাটি স্বীকার করেছেন মহানগর ছাত্রদলের সহ সভাপতি মাসরুর রাসেল। তিনি বলেন- গত কয়েকদিন আগে ঘোষিত সিলেট জেলা মহানগর ছাত্রদলের কমিটিতে খন্দকার মুক্তাদির শুধু তার বলয়ের মানুষকেই স্থান দিয়েছেন। এতে বিক্ষুব্ধ ছিল ছাত্রদলের ত্যাগী নেতা কর্মীরা। এ ঘটনার সুত্র ধরেই হামলার ঘটনাটি ঘটতে পারে বলে তিনি জানান।

অপরদিকে বিএনপির ঘরোয়া সভা শেষে বিকেল ৫টায় সিলেট নগরীর রোজ ভিউ হোটেলে বিএনপির সংবাদ সম্মেলন করার কথা থাকলেও হামলার প্রেক্ষিতে তা আরিফুল হক চৌধুরীর বাসায় করা হয়।