চুনারুঘাটে মাদককে হাজারো শিক্ষার্থীর ‘লাল কার্ড’

হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে মাদক, যৌন হয়রানি ও বাল্য বিবাহকে লাল কার্ড প্রদর্শন করলো উপজেলার অগ্রণী উচ্চ বিদ্যালয়ের হাজারো শিক্ষার্থীরা। শনিবার (২৮ জুলাই) সকাল ১০টায় বিদ্যালয় মাঠে এ লাল কার্ড প্রদর্শন করে শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের টিফিনের টাকায় পরিচালিত স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন লাল সবুজ উন্নয়ন সংঘের উদ্যোগে দেশব্যাপী পরিচালিত এ কার্যক্রমের অংশ হিসেবে এসময় শিক্ষার্থীদের মাদক, যৌন হয়রানি ও বাল্য বিবাহের বিরুদ্ধে একটি শপথ পাঠ করানো হয়। এসময় বিদ্যালয়ের প্রায় ১ হাজার ১০০ শত শিক্ষার্থী মাদক, ইভটিজিং ও বাল্য বিবাহকে না বলে শপথ নেন।

নিয়মিত পড়াশুনা করে নিজকে যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে, কখনো মিথ্যা কথা না বলতে, ছেলেরা ২১ ও মেয়েরা ১৮ বছর বয়সের পূর্বে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ না হতে শপথ পাঠ করেন তারা। শপথ পাঠ করান চুনারুঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মঈন উদ্দিন ইকবাল।

লাল কার্ড প্রদর্শন ও শপথ পাঠ শেষে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় প্রধান শিক্ষক পঙ্কজ নাহারের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন চুনারুঘাট উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আবু তাহের, লাল সবুজ উন্নয়ন সংঘের প্রতিষ্ঠাতা ও কেন্দ্রীয় সভাপতি কাওসার আলম সোহেল, বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক মো. সারোয়ার হোসেন প্রমুখ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মঈন উদ্দিন ইকবাল বলেন বর্তমান সময়ে লাল সবুজ উন্নয়ন সংঘ মাদকের বিরুদ্ধে যে পদক্ষেপ নিয়েছে তা সত্যিই প্রশংসনীয়। তিনি বলেন আজ যে সকল শিক্ষার্থীরা শপথ পাঠ করলেন তারা আগামী প্রজন্ম। শপথটি তাদের ব্যক্তি জীবনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আবু তাহের বলেন, শিক্ষার্থীদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বড় হতে হবে এবং আজ মাদক, জঙ্গিবাদ ও বাল্য বিবাহকে যেভাবে লাল কার্ড দেখিয়েছি ঠিক সেভাবেই আমাদের সকলকে অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ গড়ে তুলতে হবে।

লাল সবুজ উন্নয়ন সংঘের প্রতিষ্ঠাতা ও কেন্দ্রীয় সভাপতি কাওসার আলম সোহেল বলেন, ৮ মার্চ পঞ্চগড় তেতুলিয়া থেকে টিফিনের টাকা বাঁচিয়ে ভ্রাম্যমাণ মাদক, ইভটিজিং ও বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। হবিগঞ্জ ছিলো তার ৫২ তম জেলা। ২৯ জুলাই কিশোরগঞ্জ জেলায় কার্যক্রম পরিচালনা করবেন।

উল্লেখ্য, সংগঠনের সদস্যরা টিফিনের টাকা বাঁচিয়ে সারা দেশের বিভিন্ন স্থানে এ ধরনের কর্মসূচির আয়োজন করে যাচ্ছে।