পাঁচ জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৬ জন নিহত

দেশের পাঁচ জেলায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৬ জন নিহত হয়েছেন। সোমবার দিবাগত রাত থেকে মঙ্গলবার ভোর পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ, নাটোর, যশোর, নড়াইল ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ। র‌্যাব-পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধের’ এসব ঘটনা ঘটে।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দাবি, নিহতদের মধ্যে চারজন ডাকাত ও দু’জন মাদক ব্যবসায়ী।

নাটোর ও লালপুর : নাটোরের লালপুরে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আহাদুল (৩৮) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এ সময় দুই র‌্যাব সদস্য আহত হয়েছেন। র‌্যাবের দাবি, আহাদুল জেলার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী। নিহত আহাদুল লালপুর উপজেলার কাজিপাড়া গ্রামের মো. মোমিনের ছেলে।

র‌্যাব-৫ রাজশাহী ও সিপিসি-২ নাটোর ক্যাম্পের কমান্ডার মেজর শিবলী মোস্তফা জানান, র‌্যাব-৫ এর একটি টহল দল সোমবার রাত ২টার দিকে নাটোরের লালপুর-বনপাড়া সড়কের গোপালপুর রেলগেট এলাকায় অবস্থান করছিল। এ সময় ২ জন একটি মোটর সাইকেলে করে বনপাড়ার দিকে যাচ্ছিল। তাদের গতিবিধি সন্দেহজনক হলে র‌্যাবও তাদের পিছু নেয়। মোটর সাইকেল আরোহীরা ধানাইদহ রাস্তার বিজয়পুরে আনসারকাটা মোড় এলাকায় একটি আখ খেতের পাশে অপেক্ষারত দুই অজ্ঞাত ব্যক্তির হাতে সাদা রংয়ের প্লাষ্টিক বস্তা হাত বদলের সময় র‌্যাব সেখানে উপস্থিত হয়।

এসময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে মোটর সাইকেল আরোহী দুই ব্যক্তি মোটর সাইকেল নিয়ে পালিয়ে যায়। টহল দল র‌্যাব পরিচয় দিয়ে অপর দুইজনকে আত্মসমর্পণের জন্য বললে তারা আখ খেতের মধ্যে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় র‌্যাব তাদের ধাওয়া করলে তারা র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি করে। র‌্যাবও পাল্টা গুলি করে। এ সময় উভয়পক্ষের মধ্যে আনুমানিক ৫ মিনিট গুলিবিনিময়ের পর ঘটনাস্থলে একজনকে আহত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায় এবং দলের অপর সদস্যরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে আহত ব্যক্তিকে উদ্ধার করে লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মেজর শিবলী মোস্তফা আরও বলেন, ঘটনাস্থল থেকে একটি ম্যাগজিন, দুই রাউন্ড গুলি ভর্তি ১টি বিদেশি পিস্তল ও ২ রাউন্ড গুলির খোসা, ৫৭ বোতল ফেনসিডিল ও নগদ টাকা এবং ১টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত আহাদুলের বিরুদ্ধে লালপুর থানায় মাদক ও চোরাচালানসহ ৮টি মামলা রয়েছে।

লোহাগড়া (নড়াইল) : নড়াইলের লোহাগড়ায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক ডাকাত নিহত হয়েছেন। সোমবার (২৩ জুলাই) রাত ৩টার দিকে লোহাগড়ার কচুবাড়িয়া এলাকায় এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে। এ সময় ওয়ান শ্যুটারগান, দুই রাউন্ড গুলি, দুটি ধরালো অস্ত্র ও একটি হাতুড়ি উদ্ধার করা হয়েছে। এসময় চার পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

লোহাগড়া থানার ওসি প্রবীর কুমার বিশ্বাস জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ জানতে পারে কয়েকজন ডাকাত কচুবাড়িয়া এলাকায় ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে। সেখানে উপস্থিত হলে ডাকাতদলের সদস্যরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও গুলি চালায়। উভয়পক্ষের মধ্যে গুলি বিনিময়ের এক পর্যায়ে পুলিশ গুলিবিদ্ধ এক ডাকাতকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত ডাকাতের পরিচয় এখনো পাওয়া যায়নি।

যশোর : যশোরের মণিরামপুরে দু’দল ডাকাতের মধ্যে কথিত বন্দুকযুদ্ধে দুইজন নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার ভোরে যশোর-রাজগঞ্জ সড়কের গাঙ্গুলিয়া জামতলায় এই ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে। তবে নিহত দু’জনের নাম পরিচয় এখনও জানা যায়নি। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ।

যশোরের মণিরামপুর থানার ওসি মোকাররম হোসেন জানান, রাত দুইটার দিকে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা সাতক্ষীরাগামী একটি বাস পুলিশ পাহারায় পার করে দিয়ে আসার পর গাঙ্গুলিয়া আমতলা মোড়ে এলে গুলির শব্দ শুনতে পান খেদাপাড়া ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই আইনুদ্দিন। তখন তিনি রোহিতা বাজারের দিকে খানিকটা এগিয়ে দেখেন কিছু লোক পালিয়ে যাচ্ছে। এ সময় ঘটনাস্থলে রাস্তার দুই পাশে দুটি লাশ পড়ে থাকতে দেখে আমাকে বিষয়টি জানান। পরে থানা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে লাশ দুটি উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠাই। ঘটনাস্থল থেকে চারটি দা, দুটি রশি ও একটি করাত উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত দুইজনের মধ্যে একজনের বয়স ৫৫ বছর। তার পরনে শার্ট প্যান্ট রয়েছে। অপরজনের বয়স ৪৫ বছর। তার পরনে আছে শার্ট-লুঙি। এদের মাথায় একটি করে গুলির চিহ্ন রয়েছে। দুই দল ডাকাতের মধ্যে গোলাগুলিতে এরা নিহত হয়েছেন বলে ওসির ধারণা।

এর আগে গত ১১ জুলাই একই স্থান থেকে যশোরের হাশিমপুরের বাবলুর রহমান বাবলা নামের এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছিল।

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে র‍্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযু‌দ্ধে’ আলমগীর নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। এসময় আহত হয়েছেন ২ র‍্যাব সদস্য।

মঙ্গলবার (২৪ জুলাই) ভোরে সোনারগাঁ উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের চেঙ্গাকান্দি আগমন সিএনজি স্টেশনের পাশে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র গুলি ও ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করেছে র‍্যাব।

র‍্যাব ১১ এর এএসপি বিল্লাল হোসেন জানান, নিয়মিত মাদকবিরোধী অভিযান চালানোর সময় ভোরে সোনারগাঁ উপজেলার পিরোজপুর চেঙ্গাকান্দি আগমন সিএনজি স্টেশনের পাশ থেকে আলমগীর ও তার সহযোগীরা র‍্যাবের উপর হামলা ও গুলি চালায়। র‍্যাবও পাল্টা গুলি ছুড়লে ঘটনাস্থলেই নিহত হয় আলমগীর। এসময় র‍্যাব ১১ এর হাবিলদার হাবিবুর রহমান ও কন্সটেবল মিজান তালুকদার আহত হন।

তিনি জানান, আলমগীরের নামে বিভিন্ন থানায় ১৯টি মামলা রয়েছে। এর মধ্যে মাদক মামলাই ১০টি। তার কাছ থেকে ১টি বিদেশি পিস্তল, দুই রাউন্ড গুলি ও ১৫শ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়েছে।

শিবগঞ্জ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) : চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার মোহাম্মদপুরে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ একজন নিহত হয়েছেন। র‌্যাবের দাবি- নিহত ব্যক্তি ডাকাত দলের সদস্য।

র‌্যাব-৫, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্পের ডেপুটি কমান্ডার এএসপি আবু খায়ের জানান, সোমবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে শিবগঞ্জ-চৌডালা সড়কের মোহাম্মদপুর-ত্রিমোহনী এলাকায় পৌঁছলে র‌্যাবের টহল দলকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে ডাকাত দলের সদস্যরা। র‌্যাব সদস্যরাও পাল্টা গুলি চালায়। গোলাগুলি থেমে গেলে একজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। তাকে শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল, গুলি ও ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।