কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন জারির দাবিতে হাবিপ্রবিতে মানববন্ধন

প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন জারির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে হাজী দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। আজ বুধবার বেলা সাড়ে ১২ টায় কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের সংলগ্ন দিনাজপুর -রংপুর মহাসড়কে ঘণ্টাব্যাপী এ কর্মসূচির আয়োজন করে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

মানববন্ধনে কোটা সংস্কার আন্দোলনের আহ্বায়ক মাহমুদ হাসান বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাধারণ শিক্ষার্থীর দাবি মেনে নিয়ে সংসদে কোটা বাতিল করবেন বলে যে ঘোষণা দিয়েছিলেন আমরা তা মেনে নিয়েছি যদিও আমরা  কখনো বাতিল  চাইনি। এ ব্যপারে ৭ মে এর মধ্যে কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন জারি করার কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত তা বাস্তবায়ন করা হয় নি। এদিকে জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয় বলছে, আমরা সরকারের থেকে কোন নির্দেশনা পাইনি। সরকার ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় আমাদের সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে  টালবাহানা শুরু করেছে। আমরা প্রধানমন্ত্রী এর কথার দ্রুত বাস্তবায়ন চাই।

একই দাবি জানিয়ে কোটা সংস্কার আন্দোলনের সমন্বয়ক দ্বীপ বলেন, আমাদের কোটা সংস্কার আন্দোলন ১৭ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু করি। বিভিন্ন প্রতিকূলতাকে দমিয়ে আমরা আমাদের আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছি। ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রী আমাদের দাবি মেনে নিলেও এখনও তা কার্যকর হয়নি। আমরা প্রধানমন্ত্রীর বিরোধী নই, সব সময় প্রধানমন্ত্রীর পাশেই থাকতে চাই। আমরা কোন বৈষম্য চাই না। আমরা চাই সমান অধিকার। মেধার মূল্যায়ন করে দেশকে এগিয়ে নেয়াই আমাদের কাম্য।

কোটা সংস্কার আন্দোলনের যুগ্ম আহ্বায়ক রুবেল আহমেদ রাজ বলেন, আমরা কোন রাজনৈতিক দল নই, আমরা সাধারণ শিক্ষার্থী। কোন আন্দোলনকারীকে হয়রানি করা হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থীরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাবে। মনে রাখবেন পৃথিবীতে ছাত্র আন্দোলন কখনও বৃথা যায়নি। আমরা আমাদের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলনে পিছপা হব না। প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমাদের দাবি মেধাবীদের সুযোগ দিয়ে দেশকে মধ্যম আয়ের দেশ থেকে উচ্চ আয়ের দেশ করার সুযোগ দিন।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, রোকনুজ্জামান রোকন, মুশফিকুর রহমান, মাহমুদ আলম, শহিদুল ইসলাম ফাহিম প্রমূখ। মানববন্ধনে প্রায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করেন।