কামরানের সমর্থনে সংস্কৃতিকর্মীদের মত বিনিময়

সিসিক নির্বাচনকে সামনে রেখে সিলেটে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের কবি, সাহিত্যিক ও সংস্কৃতিকর্মীদের এক মত বিনিময় সভা অনুষ্টিত হয়। শনিবার (২১ জুলাই) নগরীর শারদা হলের মহড়া কক্ষে অনুষ্ঠিত এ মত বিনিময় সভায় বক্তারা বলেন, দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় বরাবরই সংস্কৃতিকর্মীরা ঐতিহাসিক দায়িত্ব পালন করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে সমুন্নত রাখতে হলে আওয়ামী শক্তিকে বিজয়ী করে তুলতে হবে।

সভায় বক্তারা বলেন, রক্তে কেনা এই দেশ আমরা কখনোই যুদ্ধাপরাধী এবং প্রতিক্রিয়াশীল চক্রের হাতে তুলে দিতে পারিনা। এই সিলেটে প্রতিক্রিয়াশীল চক্রের হাতে আমাদের শহিদ মিনার গুড়িয়ে দেওয়া হয়। বিগত দিনে এই অপশক্তি কর্তৃক দেশের প্রয়াত প্রধান কবি শামসুর রাহমানকে অবাঞ্চিত ঘোষণা করা হয়। তাই আগামীতে এই বিএনপি-জামায়াত অপশক্তি সিলেটে নগরভবনের দায়িত্ব পেলে তার পরিণাম হবে আরো ভয়াবহ।

সভায় বক্তারা আগামী ৩০ জুলাই সিসিক নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের প্রতীক নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে সিলেটের পরীক্ষিত নগরপিতা বদর উদ্দিন আহমদ কামরানকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করার আহবান জানান।

সভায় একসময়ে এসে যোগ দেন আওয়ামীলীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। তিনি সভায় সিলেটের সংস্কৃতিকর্মীদের এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, দেশের যে কোন ক্রান্তিকালে সুন্দর ও সত্য প্রতিষ্ঠায় বিগত দিনেও যেমনিভাবে সংস্কৃতি কর্মীরা জেগে উঠেছিলো, একই ভাবে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়নে আপনাদের এই উদ্যোগ সমৃদ্ধ সোনার বাংলা গঠনে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে।

মত-বিনিময় সভায় কামরানের পক্ষে জনমত গড়ে তুলতে নির্ধারিত রোডম্যাপ অনুযায়ী গণ-সংযোগ কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়।

সভায় রোববার বিকেল ৫ টায় আবারো চৌহাট্টাস্থ কেন্দ্রিয় শহিদমিনারে সিলেটের সংস্কৃতি কর্মীদের সমাবেশ আহবান করা হয়।

সভায় উপস্থিত ছিলেন, সিনিয়র সাংবাদিক আল-আজাদ, এনামুল মুনীর, আমিনুল ইসলাম চৌধুরী লিটন, শামসুল আলম সেলিম, গৌতম চক্রবর্তী, বিভাষ শ্যাম যাদন, মোকাদ্দেস বাবুল, নীলাঞ্জন দাস টুকু, রজত কান্তি গুপ্ত, রাসেন্দ্র নায়ায়ন তালুকদার, বিজন রায়, মুয়ীনুল ইসলাম, নীলাঞ্জনা যুঁই, হুমায়ুন কবির জুয়েল, মিশফাক আহমদ মিশু, খোয়াজ রহিম সবুজ,বিপ্লব শ্যাম পুরকায়স্থ,রজত কান্তি গুপ্ত, জোনায়েদ খোরাসানি, দেবব্রত রায় দিপন, আবিদ ফয়সাল, সিরাজ উদ্দিন শিরুল, সুমন্ত গুপ্ত, সুকান্ত গুপ্ত, উত্তম কাব্য সহ আরো অনেকে।