ওসমানীনগরে ‘আইজি’ কামালের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

সিলেটের ওসমানীনগরে কথিত ‘আইজি’ কামালের বিরুদ্ধে মিথ্যে মামলায় হয়রানিসহ জায়গা দখলের অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করেছেন তাজপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য ইকবাল হোসেন মোস্তাক।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) দুপুরে ওসমানীনগর উপজেলা প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি উপজেলার রাউৎখাই গ্রামের আবদুল বারীর পুত্র যুক্তরাজ্য প্রবাসী কামাল আহমদের বিরুদ্ধে বিস্তর অভিযোগ করেন।

মোস্তাক লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করেন, উপজেলা উসমানপুর ইউনিয়নের রাউতখাই গ্রামের মৃত আব্দুল বারীর পুত্র মো. কামাল আহমদ এলাকায় নিজেকে পুলিশের ‘আইজি’ পরিচয় দিয়ে সন্ত্রাস ও অস্ত্রবাজির রাজত্ব কায়েম করে যাচ্ছেন। তার বিরুদ্ধে কেউ কথা বললে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছেন।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, তাজপুর-বালাগঞ্জ সড়ক এলাকার মোল্লাপাড়ায় বালাগঞ্জের মজলিসপুর গ্রামের প্রবাসী আব্দুল খালিক ক্রয় করা জায়গায় দেয়ালসহ দ্বিতল ভবন নির্মাণ করে ২০-২৫ বছর ধরে ভোগদখল করে আসছেন। কিন্তু এই ভবনের প্রতি সন্ত্রাসী কামালের দৃষ্টি পড়লে জোরপূর্বক দখলের পাঁয়তারা চালানো হয়। বিষয়টি নিয়ে একাধিক গ্রাম্য সালিশে সে কাউকে পাত্তা না দিয়ে উল্টো সালিশকারী ব্যক্তিদের নামে বিভিন্ন সময়ে মিথ্যা চাঁদাবাজিসহ অন্যান্য অভিযোগে মামলা করে হয়রানি করে আসছে। তবে তার দায়ের করা মামলাগুলো পুলিশের তদন্তে মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে।

তিনি বলেন, চলতি বছরের ২৮ মে বিকেলে কামাল তার সহযোগীদের নিয়ে আব্দুল খালিকের বাসা জোরপূর্বক দখলের চেষ্টাকালে পুলিশ অভিযান চালালে কামাল তার সহযোগীদের নিয়ে পালিয়ে গেলেও একজনকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয় পুলিশ। পরবর্তীতে এ ঘটনায় কামালসহ ১০ জনের নামে থানায় মামলা দায়ের করা হয়। উক্ত মামলায় আসামিরা আদালত থেকে জামিনে থাকলেও মূলহোতা কামাল জামিন ছাড়াই প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে।

মোস্তাক অভিযোগ করেন, ২০১৯ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর হেড কোয়ার্টার্সের তথ্যের ভিত্তিতে ওসমানীনগর থানার পুলিশ কথিত ‘আইজি’ কামালের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ভুয়া পুলিশ কর্মকর্তা পরিচয়দানকারী চাঁদপুরের সদর উপজেলার আমজদ আলী (দাসপাড়া) গ্রামের আবুল হোসাইন ঢালীর পুত্র আবু বকর শাকিল ওরফে নাজমুল ছাকীবকে (২৮) গ্রেপ্তার করে। এ সময় পুলিশের লোগো সম্বলিত একটি ওয়ালেট উদ্ধার করা হয়।

মোস্তাক অভিযোগ করে বলেন, কামাল মামলার আসামি থাকা সত্ত্বেও সিলেটে সংবাদ সম্মেলন করে আমার ও আমার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ উত্থাপন করে আমাদের মান-সম্মান ক্ষুন্ন করেছেন। কথিত এই ‘আইজি’ কামালের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য দাবি জানাচ্ছি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বোয়ালজুড় ইউনিয়নের আবদুল আজিজ ও সুন্দর আলী।

এ ব্যাপারে ওসমানীনগর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিকুল ইসলাম বলেন, কেউ যদি ভুয়া পুলিশ কর্মকর্তা পরিচয় দেয়, তবে আমরা তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেব।