এবার মায়ের জন্য পাত্র চেয়ে বিজ্ঞাপন দিলেন মেয়ে

0
0

কয়েকদিন আগে মায়ের জন্য পাত্র চেয়ে বিজ্ঞাপন দিয়ে আলোচনার জন্ম দেন কেরাণীগঞ্জের দুই ভাই। এবার তেমনই এক বিজ্ঞাপন দিয়েছেন ঢাকার মিরপুরের বাসিন্দা ফারাহ জামান। তার ডিভোর্সি শিক্ষিকা মায়ের জন্য পাত্র চেয়ে ফেসবুকের একটি গ্রুপে বিজ্ঞাপন দিয়েছেন ফারাহ জামান।

রাজধানীর একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে এসএসসি সম্পন্ন করেছেন ফারাহ। তার বড় ভাই রেহমান মুশফিক এ-লেভেল শেষ করে উচ্চ শিক্ষার জন্য কানাডা পাড়ি জমিয়েছেন। কয়েক দিন পর ফারাহও চলে যাবেন। তাই মা মুস্তারি পারভীনের জন্য পাত্র চেয়ে বিজ্ঞাপন দিয়েছেন তিনি।

জানা গেছে, ৭ বছর প্রেমের পর ১৯৯৬ সালে ফারাহ-মুশফিকের বাবা-মা বিয়ে করেন। কিন্তু ২০১০ সালে ১৪ বছরের সংসারের ইতি ঘটে। এরপর থেকে দুই সন্তানকে একাই মানুষ করার দায়িত্ব নেন মুস্তারি পারভীন।

মুস্তারি পারভীনের বয়স এখন ৪৫ বছর। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর সম্পন্নের পর একটি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা করছেন তিনি।

মায়ের একাকিত্বের কথা ভেবে মঙ্গলবার রাতে ‘বিসিসিবি মেট্রিমনিয়াল: হেভেনলি ম্যাচ’ নামের একটি ফেসবুক গ্রুপে একটি বিজ্ঞপ্তি পোস্ট করেন ফারাহ। সেখানে মুস্তারি পারভীনের চারটি ছবিসহ পোস্টে ফারাহ লিখেছেন, আসসালামু আলাইকুম। আমার আম্মুর জন্য পাত্র খুঁজছি। ওই গ্রুপে মায়ের সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্যে ফারাহ জানান, পাত্রীর নাম মুস্তারি পারভীন। জন্ম ১৯৭৭ সালে। উচ্চতা ৫ ফুট ৩ ইঞ্চি, ওজন ৫৮ কেজি। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেছেন। স্থায়ী ঠিকানা: দিনাজপুর, বর্তমান ঠিকানা: মিরপুর। তিনি পেশায় একজন শিক্ষক।

ফারাহ তার পোস্টে আরও লিখেন, আমার মা একজন ডিভোর্সী। ডিভোর্সের ১২ বছর হতে যাচ্ছে। তার ২২ বছরের একটি ছেলে এবং ১৮ বছরের একটি মেয়ে আছে। এতদিন বাচ্চাদের জন্য বিয়ে করা হয়নি। এখন তার বাচ্চারা বড় হয়ে গেছে। তাই আম্মুর একজন জীবনসঙ্গী দরকার। আম্মুর জন্য ভালো মনের একজন জীবনসঙ্গী খুঁজছি।

তিনি লিখেছেন, পাত্রের বয়স ৪৫ থেকে ৫৫ বছরের মধ্যে হলে ভালো হয়। পাত্রকে শিক্ষিত, ভালো ব্যক্তিত্বসম্পন্ন ব্যবসায়ী অথবা চাকরিজীবী হতে হবে। পাত্র যেন অবশ্যই ঢাকার মধ্যে বসবাস করে। কেউ আগ্রহী হলে আমাকে ইনবক্স করুন।