উন্নয়নের ফিরিস্তি দিলেন সামাদ চৌধুরী এমপি

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন সামাদ চৌধুরী এমপি

সংবাদ সম্মেলনে এসে নিজ নির্বাচনী এলাকার উন্নয়নের ফিরিস্তি দিলেন সিলেট-৩ (দক্ষিণ সুরমা-ফেঞ্চুগঞ্জ-বালাগঞ্জের একাংশ) আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ উস-সামাদ চৌধুরী কয়েস। মঙ্গলবার (০৬ মার্চ) দুুপুরে নগরীর একটি অভিজাত রেস্টুরেন্টে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি উন্নয়ন তৎপরতা তুলে ধরেন। সেই সাথে তুলে ধরেন নিজের রাজনৈতিক জীবনের গল্পও।

এ সময় মাহমুদ উস-সামাদ চৌধুরী বলেন- গত ৯ বছরে নিজ আসনের ১৮টি ইউনিয়নে তার মাধ্যমে প্রায় ৭ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ হয়েছে। এর মধ্যে শাহজালাল সারকারখানা স্থাপনেই ব্যায় হয়েছে ৫ হাজার ৭শ’ ৯ কোটি টাকা।

তিনি বলেন, দল থেকে তাকে ৪ বার নিজ আসনে প্রার্থী দেওয়া হলে তিনি ২ বার সংসদ সদস্য হিসাবে নির্বাচনী এলাকার প্রায় ১৮টি ইউনিয়নের জনগনের সেবা করার সুযোগ পান। এই সুযোগ তিনি ভালোভাবে কাজে লাগান। এর ফলশ্রুতিতে নিজ নির্বাচনী এলকার ১৮টি ইউনিয়নের সুষম উন্নয়ন হয়েছে। প্রয়োজনীয় রাস্তাঘাট, স্কুল কলেজসহ অন্যান্য উন্নয়নমূলক প্রকল্প বাস্তবায়ন হয়েছে। এসব প্রকল্পে ব্যায় হয়েছে ৬ হাজার ৯শ’ ৫০ কোটি ৫৫ লাখ টাকা। এরমধ্যে ৫ হাজার ৭০৯ কোটি টাকা ব্যায়ে স্থাপন করা হয়েছে শাহজালাল সারকারখানা। আরও বিভিন্ন পরিকল্পনায় আরও বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প রয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মাহমুদ উস-সামাদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাম্প্রতিক সিলেট সফরকে কেন্দ্র করে ফেঞ্চুগঞ্জে প্রস্তুতিমূলক সভায় যে অনাকাংখিত ঘটনা ঘটেছে, তা মূল সভার বাইরে ঘটেছে। সেটা প্রস্তুতি সভায় নয় এবং হতে পারে তা গ্রামের অন্যকোন বিরোধকে কেন্দ্র করে সংগঠিত হয়েছে।

অপর এক প্রশ্নের জবাব দিতে গিয়ে তিনি দুর্বৃত্তের হামলায় আহত অধ্যাপক ড. জাফর ইকবালকে জাতির শ্রেষ্ঠ সম্পদ বলে অভিহিত করে বলেন, তিনি কখনোই তাকে কোর্ট পয়েন্টে নিয়ে মারধোরের কথা বলেন নি। এ ব্যাপারে তিনি মনোপলির শিকার। তার বক্তব্যের মধ্যে কিছু শব্দ সুক্ষ্মভাবে ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী তা বিশেষ সংস্থার মাধ্যমে পর্যবেক্ষণ করেছেন।

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেওয়ার লক্ষ্যে কাজ করছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন- দল থেকে তাকে মনোনয়ন দেওয়া হলে অবশ্য তিনি সফল হবেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি মাসুক উদ্দিন আহমদ, সিলেট সদর উজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগ সহ সভাপতি আশফাক আহমদ, যুগ্ম সম্পাদক সুজাত আলী রফিক প্রমুখ।