আরিফের নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণায় নেই বদরুজ্জামান

আরিফের প্রতি সমর্থন জানিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেও দলীয় সমর্থিত এ প্রার্থীর নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণায় উপস্থিত ছিলেন না মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম। দলীয় এ প্রার্থীর নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণার মতো গুরুত্বপূর্ণ মূহুর্তে সেলিমের উপস্থিত না থাকার কারণে দলের টানাপোড়েনের বিষয়টি আবারও আলোচনায় এসেছে।

বৃহস্পতিবার (২৬ জুলাই) দুপুরে নগরীর শাহী ঈদগাহস্থ প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেন বিএনপির মনোনীত প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী। এসময় সিলেট বিএনপির সিনিয়র সকল নেতাকর্মী উপস্থিত থাকলেও অনুপস্থিত ছিলেন মহানগর বিএনপির এ সাধারণ সম্পাদক।

এর আগে নির্বাচনের তফসীল ঘোষণার শুরু থেকেই নিজ দলের মনোনীত মেয়র প্রার্থীর বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছিলেন মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম। কেবল বিরোধীতাই নয় কেন্দ্রীয় বিএনপি যখন ধানের শীষ প্রতীকে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আরিফুল হক চৌধুরীকে মনোনয়ন দেয় তখন বিদ্রোহী হয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বাস গাড়ি প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন তিনি। তবে শেষমেশ দলের চাপে আরিফুল হককেই সমর্থন করে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ান বদরুজ্জামান।

গত ১৯ জুলাই দলীয় সমর্থিত প্রার্থীর বাসায় সংবাদ সম্মেলন করে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা দিয়েই নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ান তিনি। সে সময়ে দলের কারান্তরীণ নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সিদ্ধান্তকে সম্মান জানিয়েই তিনি দলীয় প্রার্থীকে সমর্থন জানিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন বলে ঘোষণা দিয়েছিলেন। কিন্তু দলীয় প্রার্থীকে সমর্থন জানানোর পর এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তিনি ওই প্রার্থীর পক্ষে কোন প্রচারণায় অংশ নেননি। ফলে নির্বাচনের সন্নিকটে এসে আবারো টানাপোড়েনের বিষয়টি আলোচনায় উঠে এসেছে।

তবে দলীয় এ প্রার্থীকে সমর্থনের দুই দিন পর গত ২১ জুলাই মহানগর বিএনপির পক্ষ থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হয় বদরুজ্জামান সেলিম অসুস্থ হয়ে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি আছেন। মহানগর বিএনপির দপ্তর সম্পাদক রেজাউল করিম আলো প্রেরিত ওই সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সে সময় বলা হয় বদরুজ্জামান সেলিম সুস্থ হয়ে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণায় অংশ নিবেন। তবে বদরুজ্জামান সেলিম সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ফিরলেও দলীয় প্রার্থীর প্রচারণায় অংশ নেওয়া তো দূরের কথা ইশতেহার ঘোষণার মুহূর্তেও তিনি ছিলেন অনুপস্থিত।

এদিকে সিলেট মহানগর বিএনপির একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে বদরুজ্জামান সেলিম সুস্থ হয়ে বর্তমানে হাসপাতাল থেকে ফিরেছেন। তবে হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে ফিরলেও ডাক্তারের পরামর্শে তিনি এখন বিশ্রামে আছেন। আগামীকাল (শুক্রবার) থেকে তিনি দলীয় প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিবেন বলেও জানা গেছে।