অভিযোগের ৮ মাসেও বিচার হয়নি ভুল চিকিৎসার!

ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জে ডা. বিধান সরকারের বিরুদ্ধে ভুল চিকিৎসায় রোগীর কিডনি অকেজো করে দেয়ার লিখিত অভিযোগ জানানোর দীর্ঘ ৮ মাসেও বিচার পাননি ভুক্তভোগীর পরিবার।

জানা যায়, উপজেলার ফেঞ্চুগঞ্জ সদর ইউনিয়নের নিজ ছত্তিশ গ্রামের নরুল ইসলামের স্ত্রী রাফিয়া ইসলাম (৫০) গত বছরের আগস্ট মাসে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডা. বিধান সরকারের ভুল চিকিৎসায় কিডনি অকেজো হয়ে দীর্ঘ ১ বছর ধরে চিকিৎসাধীন আছেন। ঘটনার ৩ মাস পর ফেঞ্চুগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শফিকুল আলম বরাবর লিখিত অভিযোগ জানান তাঁর পরিবার।

রাফিয়া ইসলামের স্বামী নুরুল ইসলাম বলেন, দীর্ঘদিন থেকে আমার স্ত্রী ঢাকার কিডনি ফাউন্ডেশনে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এ পর্যন্ত আমার ১০ লক্ষ টাকা খরচ হয়েছে। ফেঞ্চুগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শফিকুল আলম বরাবর লিখিত অভিযোগ দেয়ার পরেও এখনো পর্যন্ত আমি সঠিক বিচার পাইনি।

তিনি বলেন, ডা. শফিকুল আলম ঘটনার তদন্তের জন্য ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করে বাদী বিবাদী উভয় পক্ষের জবানবন্দি নিয়েছেন। পরে তদন্তের রিপোর্ট সিলেট সিভিল সার্জনের কাছে হস্তান্তর করা হয়। কিন্তু এতোদিন পরও তদন্তের রায় ঘোষণা করা হচ্ছে না।

বিচার না পেয়ে এখন ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন নুরুল ইসলাম।

এ বিষয়ে ফেঞ্চুগঞ্জ হাসপাতালের পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শফিকুল আলম বলেন, বিষয়টি স্থানীয় সাংবাদিক মামুনুর রশিদ ও ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সহকারী অফিসার বিজন বাবুর মাধ্যমে স্থানীয়ভাবে আপোষের কথা।

তবে কবে আপোষ হবে জানতে চাইলে সুনির্দিষ্টভাবে কিছু বলতে পারেননি তিনি।